মেইন ম্যেনু

দ্বিতীয় ইনিংসেও ভারতীয় বোলারদের নাকানি-চুবানি খাওয়াচ্ছে ইংল্যান্ড

রাজকোট টেস্টের শেষ পর্যন্ত সমাপ্তি হবে কী হবে না এখনই জ্যোতিষির মত বলে দেয়া সম্ভব। কারণ, যেভাবে ব্যাটসম্যানরা চতুর্থ দিন বিকেলেও রানের দেখা পেয়েছেন- তাতে পঞ্চম দিনেও যে ব্যাটসম্যানরা আধিপত্য করবেন- তা অনায়াসেই বলা যায়। ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা, বিশেষ করে রবিচন্দ্রন অশ্বিন চতুর্থ দিন ব্যাট হাতে ভেলকি দেখিয়েছেন। ৭০ রানের ইনিংস খেলে ভারতকে স্বপ্ন দেখিয়েছেন। যদিও শেষ পর্যন্ত ৪৮৮ রানে অলআউট ভারত।

তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ভারতকে উল্টো জবাব দিচ্ছে ইংল্যান্ড। ইতিমধ্যেই তারা কোন উইকেট না হারিয়ে তুলে ফেলেছে ১১৪ রান। চতুর্থ দিন শেষে ভারতীয়দের চেয়ে ইংলিশরা এগিয়ে রয়েছে ১৬৩ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে এখনও পুরো ১০ উইকেট বাকি রয়েছে তাদের হাতে।

হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন অভিষিক্ত টেস্ট ওপেনার হাসিব হামিদ। প্রথম ইনিংসে ৩১ রানে আউট হয়ে গেলেও তিনি যে সত্যিই ইংল্যান্ড দলে খেলার যোগ্যতা রাখেন, সেটা প্রমাণ করলেন দ্বিতীয় ইনিংসে এসে। অধিনায়ক এবং অভিজ্ঞ টেস্ট ব্যাটসম্যান অ্যালিস্টার কুকের সঙ্গে জুটি বেধে অবিচ্ছিন্ন রয়েছেন এখনও। তুলে নিয়েছেন প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। দিন শেষে তিনি অপরাজিত রয়েছেন ৬২ রানে। অ্যালিস্টার কুকও রয়েছেন হাফ সেঞ্চুরির অপেক্ষায়। তিনি করেছেন ৪৬ রান।

পঞ্চম দিন সকালে স্পিনাররা ভেলকি দেখাতে পারলে হয়তো কিছুটা সাফল্য আশা করতে পারে ভারত। তবে তারা যে খুব বেশি প্রভাব বিস্তার করতে পারবে, সেটা এখন বলা যাচ্ছে না। কারণ, প্রথম ইনিংসেও তারা খুব বেশি কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারেনি। জাদেজা আর অশ্বিন মিলে নিয়েছেন মাত্র ৫ উইকেট।

অপর দিকে এখনও ব্যাট করতে নামেননি প্রথম ইনিংসে তিন সেঞ্চুরিয়ান জো রুট, মঈন আলি এবং বেন স্টোকস। একেবারে ৮-৯ নাম্বার পর্যন্ত ইংল্যান্ডের ব্যাটিং লাইনআপ। সুতরাং, ভারতীয়দের জয়ের আশা করাটাই এখন বোকামি।