মেইন ম্যেনু

নগদ টাকা ও স্বর্ণঅলংকার নিয়ে প্রেমিকের হাত ধরে প্রবাসীর স্ত্রী নিরুদ্দেশ

লক্ষীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের আরব আমীরাত প্রবাসী জিয়াউর রহমান তুহিনের স্ত্রী শারমিন আক্তার সাথী (২৬) স্বর্ণলংকার, নগদ টাকাসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে প্রেমিকের হাত ধরে নিরুদ্দেশ। নিরুদ্দেশকৃত শারমিন আক্তার চন্ডিপুর গ্রামের বেচারাম বাড়ির মোঃ শাহজাহানের মেয়ে।

স্থানীয়রা জানান, শারমিন আক্তার প্রবাসী শ্বামী তুহিনের গুচ্ছিত নগদ টাকা, স্বর্ণলংকারসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে বাপের বাড়িতে থাকেন। গতকাল গুচ্ছিত অর্থ, স্বর্ণলংকারসহ মালামাল নিয়ে বাপের বাড়ী থেকে প্রেমিকের হাত ধরে নিরুদ্দেস হয়। ২০১২ সালে তুহিনের সাথে শারমিনের বিয়ে হয়। তুহিন প্রবাস থাকায় শারমিন বেপরোয়া ও অসামাজিক কর্মকান্ড শশুরালয় লোকজন প্রতিবাদসহ প্রবাসী তুহিনকে অবগত করেন। বহুরূপী ও ছলনাময়ী শারমিন তুহিনকে শশুরালয় বিরুদ্ধে ভুল ধারণা দিয়ে পরকিয়া লিপ্ত হয়ে একাধিকবার অণৈতিক কর্মকান্ড ধরাশয় হয়।

শশুরালয় স্বজনসহ ওই গ্রামের সাধারন মানুষের তীব্র প্রতিবাদে শারমিন গত দুই বছর যাবত বাপের বাড়িতে বসবাস করে। পিত্রালয় থেকে শারমিন রামগঞ্জ পৌরশহরস্থ বিভিন্ন সময়ে বখাটের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে। এক পযায়ে শারমিন প্রেমিকের হাত ধরে নিরুদ্দেস হয়।

প্রবাসি তুহিন জানান, শারমিনের প্রতি তার বিশ্বাস ছিল। বাপের বাড়ীতে তার গুচ্ছিত টাকা, স্বর্ণলংকার জমা এবং শশুরালয় স্ত্রীকে ভরনপোষণ দিয়ে আসছিল সে। তার স্ত্রী তার সাথে প্রতারনা করায় তিনি হতভম্ব।



« (পূর্বের সংবাদ)