মেইন ম্যেনু

নরেন্দ্র মোদী স্বৈরাচারী? নোটবাতিল নিয়ে কড়া সমালোচনা অমর্ত্য সেনের

1q

তাঁর সঙ্গে মোদী সরকারের সম্পর্ক মোটেই ভাল নয়। এবারে নোটবাতিল প্রসঙ্গে সরাসরি নরেন্দ্র মোদীর যেভাবে তিনি সমালোচনা করলেন, তাতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের দূরত্ব আরও বাড়লে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

নোটবাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য নরেন্দ্র মোদীকে স্বৈরাচারী বলেই আক্রমণ শানিয়েছেন প্রবীণ এই অর্থনীতিবিদ। একটি সর্বভারতীয় সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অমর্ত্য সেনের অভিযোগ, নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় সরকারে স্বৈরাচারী মনোভাবকেই তুলে ধরে। বিশ্বখ্যাত এই অর্থনীতিবিদের মতে, ‘আচমকা এই ধরনের সিদ্ধান্তের মধ্যে কোনও নিশ্চয়তা নেই। বরং এই ধরনের ঘোষণার মাধ্যমে জোর করে মানুষের উপরে স্বৈরাচারী সিদ্ধান্তকে চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই ভাবে বৈধ মুদ্রাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে সরকার যে দাবি করছে, তার অর্থ অধিকাংশ ভারতীয়ের কাছেই কালো টাকা রয়েছে। সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে এখন সাধারণ মানুষকে প্রমাণ করতে হবে যে তাঁরা কালো টাকার মালিক নন।’

নিজেদের ব্যাঙ্কে থাকা টাকা তুলতেও সাধারণ মানুষকে যে ধরনের হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে, তা নিয়েও সরব হয়েছেন অমর্ত্য সেন। তাঁর কথায়, ‘একমাত্র কোনও স্বৈরাচারী সরকারই এত শান্তভাবে মানুষকে এই ধরনের ভোগান্তির মুখে ফেলতে পারে। লক্ষ লক্ষ নিরপরাধ মানুষ প্রতিদিন নিজেদের অধিকারের টাকা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন, টাকা তুলতে গিয়ে হয়রান হচ্ছেন, অসম্মানের শিকার হচ্ছেন।’
কিন্তু এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশের কতটা ভাল হবে? তা নিয়েও অবশ্য খুব একটা নিশ্চিত নন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ। তাঁর কথায়, ‘এটা বলা খুব মুশকিল। প্রধানমন্ত্রী এর আগেও বলেছিলেন বিদেশ থেকে কালো টাকা উদ্ধার করে সাধারণ মানুষকে তার ভাগ দেবেন। যারা অভিজ্ঞ কালো টাকার কারবারি, তারা এই নোট বাতিলের ফাঁদ এড়ানোর পথ ভাল ভাবেই জানে। কিন্তু এই সিদ্ধান্তের ফলে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন আম জনতা। ভাল কাজ এক এক সময় যন্ত্রণাদায়ক হয়। কিন্তু যে সমস্ত সিদ্ধান্তের ফলে মানুষকে কষ্ট সহ্য করতে হয়, তার প্রতিটিরই ফল ভাল হয়, এটাও সঠিক নয়।’

মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার অব্যবহিত পরে গত বছর জুলাই মাসে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের পদে মেয়াদ শেষ হয়েছিল অমর্ত্য সেনের। তার পরে আর তাঁকে পুনর্বহাল করা হয়নি। যদিও এই বিশ্ববিদ্যালয়ের গভর্নিং বোর্ডের সদস্য ছিলেন এই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে নতুন গভর্নিং বোর্ড তৈরি করেছে, তার সদস্য হিসেবেও রাখা হয়নি অমর্ত্য সেনকে