মেইন ম্যেনু

নারকেল তেল স্বাস্থ্যের জন্য অতটা ভালো নয় যতটা বলা হয়

বছরের পর বছর ধরে এই ধারণা প্রচলিত আছে যে, নারকেল তেল আপনার চুল, ত্বক এবং হৃদপিণ্ডের জন্য আশীর্বাদ স্বরুপ। কিন্তু আসলেই কি তাই?
সম্ভবত না।
কিছু পটভূমি তথ্য: নারকেল তেলের ৯২ শতাংশই সম্পৃক্ত চর্বি। এই চর্বি অস্বাস্থ্যকর যা আপনার রক্তে এলডিএল বা বাজে কোলোস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি করে। আর ফলত হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকিও বাড়ায়। কিন্তু অনলাইনে নারকেল তেলকে স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি বলে প্রচারণা চালানো হয়েছে। কেন?
হার্ভার্ড টিএইচ চ্যান স্কুল অফ পাবলিক হেলথ এর পুষ্টি বিভাগের চেয়ারম্যান ওয়াল্টার উইলেট বলেন, “নারকেল তেলে থাকা সম্পৃক্ত চর্বির কিছু আবার ডেইরি চর্বির চেয়ে সংক্ষিপ্ততর অণু সমৃদ্ধ যেগুলো এইচডিএল কোলোস্টেরল আরো জোরালো করে।”
প্রকৃতপক্ষে, অনেকে তর্ক তুলেছেন যে, নারকেল তেল অন্যান্য সম্পৃক্ত চর্বির তুলনায় মানবদেহে একটু ভিন্নভাবে কাজ করে। কিন্তু চলতি বছরের শুরুর দিকে নিউট্রিশন রিভিউস জার্নালে প্রকাশিত ২১টি গবেষণার এক পর্যালোচনায় এই দাবিকে “বেঠিক” বলে খারিজ করে দেওয়া হয়।
আর কিছু গবেষক লক্ষ্য করেছেন, যারা প্রচুর পরিমাণ নারকেল পণ্য খায় তাদের হৃদপিণ্ড সংশ্লিষ্ট কোনো নেতিবাচক অভিজ্ঞতা নেই।
কিন্তু জার্নাল অফ দ্য আমেরিকান কলেজ অফ কার্ডিওলজিতে প্রকাশিত নতুন এক গবেষণায় দেখা গেছে, এইচডিএল কোলোস্টেরল হৃদপিণ্ডের জন্য অতটা স্বাস্থ্যকর নয় যতটা ভেবেছেন বিশেষজ্ঞরা।
গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন, এইচডিএল হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের বিরুদ্ধে কোনো প্রতিরক্ষা দেয় না। আর যাদের রক্তে উচ্চ মাত্রায় এইচডিএল কোলোস্টেরল রয়েছে, তারা মূলত হৃদপিণ্ড ঘটিত নয় এবং স্ট্রোক সংক্রান্ত কারণে মৃত্যুর বাড়তি ঝুঁকিতে থাকেন।
নিউট্রিশন রিভিউস গবেষণার গবেষকরা উপসংহার টেনেছেন, এমন কোনো প্রমাণ নেই, নারকেল তেল খেলে আপনার কোলোস্টেরলের উন্নতি হবে বা হৃদরোগের ঝুঁকি কমবে। আর ড. উইলেট বলেন, “এমন কোনো প্রত্যক্ষ সাক্ষ্য-প্রমাণ নেই যে নারকেল তেল স্বাস্থ্যকর চর্বি।”
সূত্র: ফক্স নিউজ