মেইন ম্যেনু

নিষিদ্ধ হতে পারে যৌনতার সঙ্গে যুক্ত সেক্স রোবট কিংবা সেক্স ডল!

বন্ধ হয়ে যেতে পারে সেক্স রোবট! মনটা খারাপ হয়ে গেল!! হ্যাঁ, খারাপ হওয়ার মতোই ঘটনা। যৌনকর্মে ব্যবহৃত হতে পারে, এমন সমস্ত রোবট বানানো নিষিদ্ধ করতে একটি ক্যাম্পেন চালু হয়েছে বিলেতে। ক্যাম্পেইনের নেতা ড. ক্যাথলিন রিচার্ডসন প্রযুক্তির এমন ব্যবহারকে অপ্রয়োজনীয় আর অবাঞ্ছিত বলে বর্ণনা করেছেন। আর সেই কারণে সেক্স রোবট বন্ধের ডাক দিয়ে পথে নেমেছে রিচার্ডসন।

যদিও অন্যদিকে, সেক্স ডলের বাজার ধীরে ধীরে আরও বিস্তার লাভ করছে। অনেকেই এখন এই ধরনের পণ্যে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। আর এমন রোবটের প্রয়োজন রয়েছে বলে দাবি করেছেন এই রোবট তৈরির সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা। শুধু তাই নয়, যৌনতার সঙ্গে আগামীদিনে রোবট আরও ক্রমশ জড়িয়ে যাবে বলেই মত তাদের।

তবে লেস্টারের ডি মন্টফোর্ট ইউনিভার্সিটির রোবট বিষয়ক বিষেজং ড. রিচার্ডসন এই বিষয়ে আরও সচেতনতা বাড়াতে চান। সেই সঙ্গে, এই রোবট বানানোর সঙ্গে জড়িতদের এই রোবট কীভাবে ব্যবহৃত হয় তা বুঝিয়ে এই বিষয়ে নতুন করে ভাবতে বলবেন তিনি। তিনি বলেন, “রোবোটিক্সের জন্যে সেক্স রোবটের উপর নজর বাড়ছে। এই রোবটগুলোর মডেল আর এগুলো যেভাবে কাজ করে তা খুবই বিরক্তিকর।” তার মতে, এই রোবটগুলি মহিলাদের বিষয়ে প্রথাগত পুরুষতান্ত্রিক বিশ্বাসকে আরও শক্তিশালী করে আর শারিরীক সম্পর্ক ছাড়া মানুষের সম্পর্কে আর কিছু দরকার নেই- এমন ধারণার জন্ম দেয়।