মেইন ম্যেনু

নোট বাতিলের জের; ৫০০ টাকায় বিয়ে সারলেন গুজরাতের দম্পতি

1480081354

৫০০ কোটি নয়, মাত্র ৫০০ টাকায় বিয়ে সেরে ফেললেন সুরাতের দক্ষা আর ভরত। নোট বাতিলের ধাক্কায় বিয়েই বাতিল হতে চলেছিল দু’জনের। বিয়ের খরচতো কম নয়? চলতি সময়ে অত টাকা জোগাড় করাতো সোজা কথা নয়। দক্ষা-ভরত অত টাকা জোগাড়ের ঝক্কিতে যায়নি। বিয়ের খরচটাই কমিয়ে দিয়েছে। অভ্যাগতদের মেনুতে শুধুই চা রাখে। চা খেয়েই নব দম্পতিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অভ্যাগতরা।

‘মিয়া-বিবি রাজি, তো কেয়া করেগা কাজি?’ তবে, এক্ষেত্রে মিয়া-বিবি রাজি, কাজিও নারাজ নয়- কিন্তু নোট বাতিলের ধাক্কায় বিয়ে বাতিল হতে বসেছিল সুরাতের দক্ষার। বেশ কয়েকমাস আগে সুরাতের ভরত প্রমার সঙ্গে দক্ষার বিয়ের দিন ঠিক হয়ে যায়। খবর যায় আত্মীয়স্বজনের কাছে। নেমন্তন্ন করা হয় বন্ধুবান্ধব, পড়শিদের। সব কিছুই ছিল ঠিকঠাক, আচমকাই বিনা মেঘে বজ্রপাতের মত নোট বাতিল। বিয়ে ভেস্তে যায় আর কী। তবে দমেননি দক্ষা ও ভরত। ৫০০ টাকায় বিয়ে সেরে ফেললেন তাঁরা।

শেষ পর্যন্ত পরিত্রাণের উপায় যে চা হতে পারে এমনটা কে জানত ? এর আগে অবশ্য গুজরাটের আরেকজন ভোটের আগে চা নিয়ে বেশ চর্চা করেছিলেন। ভোটে জিতে তিনি প্রধানমন্ত্রী। কালোধন উদ্ধারে তাঁর নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের ধাক্কায় বিয়ে বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল গুজরাতেরই দুই তরুণ-তরুণীর। এক্ষেত্রেও পরিত্রাতা সেই চা। বিয়ে হল মাত্র পাঁচশ টাকায়। অত্মীয় কুটম্বদের বিয়ের দিন খাওয়ানো হল চা।
সপ্তাহ খানেক আগে গোট দেশ তোলপাড় হয়েছিল পাঁচশ কোটির বিয়ের খবরে। নোট বাতিলের এমন সময়ে, যখন এটিএম, ব্যাঙ্ক, পোস্ট অফিস কেউই মুক্ত হস্ত নয়, তখন কী করে বিয়েতে খরচ হয়েছে পাঁচশ কোটি টাকা? সাধারণ মানুষের মত এই প্রশ্ন তুলেছে আয়করের দফতরও। এই বাজারে আরেক বিয়ে শিরোনামে। তবে সেখানে খরচ মাত্র পাঁচশ টাকা। -জিনিউজ