মেইন ম্যেনু

নোবেলজয়ের তথ্য মুছে দিল ডিলানের ওয়েবসাইট

bob_dylan_28366_1477082506

নোবেলজয়ের ব্যাপারে মার্কিন সঙ্গীতশিল্পী ও গীতিকার বব ডিলান নীরব ভূমিকা পালন করলেও ১৭ অক্টোবর তার ওয়েবসাইটে নোবেলজয়ের তথ্য সংযুক্ত হওয়ায় আশাবাদী হয়ে ওঠেন কৌতূহলীরা। এর মধ্য দিয়ে ডিলান পরোক্ষ নোবেলজয়কে স্বীকৃতি দিচ্ছেন বলে মনে করা হচ্ছিল। ভাবা হচ্ছিল হয়তো এ নিয়ে সবার কৌতূহলের অবসান হতে যাচ্ছে। শিগগিরই হয়তো এ নিয়ে মুখ খুলবেন ডিলান। কিন্তু সেই কৌতূহল অবসানের বদলে নতুন কৌতূহল যুক্ত হয়েছে। কেননা, ডিলানের ওয়েবসাইট থেকে তাকে ‘সাহিত্যে নোবেলজয়ী’ হিসেবে উল্লেখ করা বাক্যটি সরিয়ে ফেলা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান খবরটি নিশ্চিত করেছে। এর আগে, গার্ডিয়ানই জানিয়েছিল, বব ডিলানের ওয়েবসাইটে তার নোবেল পাওয়ার তথ্যটি যুক্ত করার খবর।

সঙ্গীতের ঐতিহ্যে নতুন কাব্যিক মূর্ছনা তৈরির জন্য ১৩ অক্টোবর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার জিতে নেন প্রখ্যাত মার্কিন সঙ্গীতশিল্পী ও গীতিকার বব ডিলান। কিন্তু এরপর থেকে তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে না নোবেল কমিটি। ডিলানকে ফোন করা হয়েছে, ধরেননি। প্রতিনিধি পাঠিয়েছে নোবেল কমিটি। কিন্তু ডিলান নাকি তাদের কারও সঙ্গে দেখা করতে চাননি। বব ডিলানও নোবেলজয়ের ব্যাপারে তার প্রতিক্রিয়া জানাননি। তার ওয়েবসাইটেও এ ব্যাপারে নতুন তথ্য সংযুক্ত করা হচ্ছিল না। এমনকি নোবেলজয়ের পর লাস ভেগাসের কনসার্টে অংশ নিয়ে দর্শক মাতিয়ে দিলেও, সেই ডিলানের মুখে একবারও শোনা যায়নি নোবেল কমিটি তাকে এ বছরের সাহিত্য পুরস্কার বিজয়ী বলে ঘোষণা করেছে। তাহলে কি এ বছর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কারজয়ী বব ডিলানের বিশ্বের সর্বোচ্চ সম্মাননা নিতে কোনো আপত্তি আছে? তিনি কি নোবেল পুরস্কার নিতে চাইছেন না? এমন নানা প্রশ্ন ও কৌতূহল জন্মেছে ভক্তদের মনে।

এমন প্রেক্ষাপটে বৃহস্পতিবার গার্ডিয়ানে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, বব ডিলানের ওয়েবসাইটে এ সঙ্গীতশিল্পীর ব্যক্তিগত তথ্যে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। সেখানে বব ডিলানকে ‘সাহিত্যে নোবেলজয়ী’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। ওই ওয়েবসাইটটিতে মূলত ডিলানের রচিত নতুন নতুন গানের বইগুলো সম্পর্কে জানানো হয়ে থাকে।

তবে শুক্রবার পাল্টে যায় পরিস্থিতি। এদিন গার্ডিয়ানে প্রকাশিত আরেক প্রতিবেদনে বলা হয়, বব ডিলানের ওয়েবসাইটে যে তথ্যটি যুক্ত করা হয়েছিল তা সরিয়ে ফেলা হয়েছে।