মেইন ম্যেনু

নোয়াখালী জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ১৮ লাখ টাকা আত্মসাৎ অভিযোগ

এম.এ আয়াত উল্যা, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী : নোয়াখালী জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর ১৮ লাখ টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ রোববার দুপুরে জলা প্রশাসক বরাবর স্বারকলিপি, বিক্ষোভ ও মানববন্ধন প্রশিক্ষনার্থী ও প্রশিক্ষক। প্রশিক্ষনার্থী অভিযোগ করেন, দলিত, হরিজন, বেদে ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন শীর্ষক ৫০ দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর ৬ টি খাত থেকে ১৮ লক্ষ ৪৩ হাজার ৭২৫ টাকা আতœসাৎ করেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক শেখ সহসিন আলী। প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে অংশ নেয়া প্রশিক্ষনার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, দলিত, হরিজন, বেদে ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর ৬৩ জন প্রশিক্ষনার্থী জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে ২৬ জুন থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর ৫০ দিনব্যাপী সেলাই ও বিউটিফিকেশন উপর প্রশিক্ষণ গ্রহন করে। প্রশিক্ষণকালীন সময়ে কোর্স পরিচালক ও জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক শেখ সহসিন আলী সরকার দেয়া বরাদ্দ হতে প্রশিক্ষণ ভাতার অর্থ, খাবার ও নাস্তার অর্থ এবং প্রশিক্ষণ শেষে উপকরনের সর্বমোট ১৮ লক্ষ ৪৩ হাজার ৭২৫ টাকা আতœসাৎ করে। আত্মসাৎকৃত অর্থের বিবরন- হিজড়াদের আপ্যায়ন বাবত জনপ্রতি বরাদ্দ ২১০ টাকা। দেয়া হয়েছে ১০০ টাকা। দলিত, হরিজন, বেদে ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর দৈনিক বরাদ্দ ১৯০ টাকা। দেয়া হয়েছে ১০০ টাকা। প্রশিক্ষন উপকরন: সেলাই মেশিন ৪৪ টির প্রতিটির জন্য সরকার নির্ধারিত বরাদ্দ ১০ হাজার টাকা। প্রতিটি ক্রয় করা হয়েছে ৭০০০ টাকা করে। পার্লারের উপকরন ক্রয় বাবত জনপ্রতি বরাদ্দ ১০ হাজার টাকা। ক্রয় করা হয়েছে জনপ্রতি ৮ হাজার টাকার উপকরন। ৬৩ জন প্রশিক্ষনার্থীকে খাবার বাবত ৬ দিন টাকা দেয়া হয়নি। প্রশিক্ষনকালীন সময় প্রতিদিন গড়ে ১৫/২০ জন অনুপস্থিত ছিলো তাদের বরাদ্দের টাকাসহ বিভিন্ন খাত থেকে আত্মসাৎ করে। জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক শেখ সহসিন আলী কর্তৃক আতœসাৎকৃত অর্থের সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রশিক্ষনার্থীদের সরকার কর্তৃক বরাদ্দকৃত বাকী টাকা প্রদান করে শেখ সহসিন আলীর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করে প্রশিক্ষনার্থীরা।