মেইন ম্যেনু

পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হয়েছে ৪০ শতাংশ

প্রায় ৪০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে পদ্মা বহুমুখী সেতুর। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করতে মাওয়া ও জাজিরা দু প্রান্তেই চলছে দিনরাতের কর্মযজ্ঞ। ধীরে ধীরে দৃশ্যমান হচ্ছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু।

পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতু নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয় ২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর। ২০১৮ সালের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ করতে পদ্মার কূলহীন কিনার জুড়ে দিতে চলছে ২৪ ঘন্টার কর্মযজ্ঞ।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এ সেতু নির্মাণে মূল পিলার বসানোর আগে চলছে টেস্টিং পিলার।

পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, সেতুর প্রধান কাজ হলো ফাউন্ডেশন। বর্তমানে এই ফাউন্ডেশন কাজে অামরা প্রাথমিক টেস্ট করছি। এটি করে গিয়ে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হত হচ্ছে।

জার্মানির তৈরি ২ হাজার ৫শ’ টন ক্ষমতার এ হ্যামার দিয়েই ১শ’ ২০ মিটার দৈর্ঘ্যরে পিলারগুলো নদীর বুকে বসিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কাজ দ্রুত করতে যোগ হয়েছে আরেকটি হ্যামার।

প্রকল্প পরিচালক বলেন, আমরা আমাদের টার্গেট অনুযায়ী কাজটি সম্পন্ন করতে চাই। এজন্য স্পেশাল হ্যামার আনা হয়েছে, দক্ষ ইনঞ্জিনিয়ার আনা হয়েছে।

চীন থেকে মংলা সমুদ্রবন্দর হয়ে সুপার স্ট্রাকচারের বিভিন্ন অংশ আনা হচ্ছে মাওয়ায়। মাওয়া ওয়ার্কশপে এসব স্ট্র্যাকচার জুড়ে দিয়ে তৈরি হচ্ছে ১শ’ ৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে সুপারস্টাকচার বা স্প্যান।

৩ হাজার মেট্রিক টন ওজনের প্রতিটি স্প্যান বসানো হচ্ছে সাড়ে ৪ হাজার মেট্রিক টন ক্ষমতার ক্রেনের মাধ্যমে।