মেইন ম্যেনু

পাবনার ঈশ্বরদীতে বাল্যবিবাহ বন্ধ : বরের কারাদণ্ড, বাবার জরিমানা

বাল্য বিয়ে

রবিউল ইসলাম শাহীন, জেলা প্রতিনিধি, পাবনা : পাবনার ঈশ্বরদীতে বাল্যবিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী। এ ঘটনায় বরের কারাদণ্ড ও মেয়ের বাবাকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মুলাডুলি ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বেদুনদিয়া (ঢুলটি) গ্রামে বাল্যবিবাহের অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালানো হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাকিম ছিলেন ঈশ্বরদী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শাকিল মাহমুদ।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন ছলিমপুর ইউনিয়নের চরমিরকামারী গ্রামের বর মো. হাসান আলী (২৮) ও মুলাডুলি ইউনিয়নের বেদুনদিয়া (ঢুলটি) গ্রামের আবদুল হামিদ প্রামাণিক (৫৭)।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, গরু-খাসি জবাই করে বাড়িতে সাড়ম্বরে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। বাড়ির সামনে তৈরি করা হয় সুদৃশ্য ফটক। বিকেলের দিকে বিয়ে হবে। বরপক্ষ গাড়িবহর নিয়ে হাজির। বিয়ের কনে স্থানীয় এম এ গফুর মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। অনুষ্ঠানের একপর্যায়ে উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসন খবর পায়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাকিল মাহমুদ পুলিশ সঙ্গে নিয়ে কনের বাড়িতে উপস্থিত হন এবং বিয়ে বন্ধ করে দেন।

এ সময় বাল্যবিবাহের অভিযোগে বরকে এক মাসের কারাদণ্ড ও কনের বাবাকে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন।

ঈশ্বরদী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম শাকিল মাহমুদ বলেন, ঈশ্বরদীতে বাল্যবিবাহ বন্ধে প্রশাসন সব সময় সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে বাল্যবিবাহ ও যৌতুকমুক্ত সমাজ গড়ার জন্য তিনি সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।