মেইন ম্যেনু

পাবনায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই চরমপন্থী নিহত

পাবনার সাঁথিয়ায় র‌্যাবের সঙ্গে `বন্দুকযুদ্ধে` জোড়া খুন মামলার প্রধান আসমি এবং চরমপন্থী সংগঠন সর্বহারার আঞ্চলিক কমান্ডার বিপলু (৫০) এবং তার সহযোগী ময়েন (৩৫) নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভলবার, ৬ রাউন্ড গুলি ও একটি বন্দুক উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

শুক্রবার ভোর ৪টায় সাঁথিয়া উপজেলার আতাইকুলা থানার গয়েশবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত বিপলু সাঁথিয়া উপজেলার ধুলাউড়ি ইউনিয়নের কাশিনাথপুর গ্রামের আব্বাস আলীর ছেলে। তিনি আতাইকুলার আওয়ামী লীগ নেতা শাহজামাল মেম্বার ও তার মা জয়গন বিবি হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছিলেন। এছাড়া ময়েন একই উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের বড় পাইকশা গ্রামের মো. মোতালেবের ছেলে।

র‌্যাব-১২ পাবনা ক্যাম্পের অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীনা রানী দাস জানান, পাবনার আতাইকুলা থানা একটি সন্ত্রাস কবলিত এলাকা হিসেবে চিহ্নিত। প্রায়ই ওই এলাকায় সন্ত্রাসীদের আনাগোনা হয় বলে র‌্যাবের কাছে তথ্য আছে। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার ভোরে র‌্যাবের কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে যে, আতাইকুলা থানার গয়েশবাড়ি এলাকায় সন্ত্রাসীরা ডাকাতির প্রস্ততি নিচ্ছে।

খবর পেয়ে র‌্যাব-১২ পাবনা ক্যাম্পের অধিনায়কের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি বিশেষ টিম শুক্রবার ভোরে সেখানে গেলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা র‌্যাবকে উদ্দেশ্য করে গুলি ছোঁড়ে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালালে শুরু হয় বন্দুকযুদ্ধ। এসময় বিপলু ও ময়েন গুলিবিদ্ধ হলে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। পরে র‌্যাব ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভলবার, ৬ রাউন্ড গুলি এবং একটি বন্দুক উদ্ধার করে।

আতাইকুলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, নিহতরা দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী। নিহত বিপলু চরমপন্থী সংগঠন সর্বহারার আঞ্চলিক কমান্ডার।

সাঁথিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসিরুদ্দিন জানান, নিহতদের বিরুদ্ধে সাঁথিয়া ও বিভিন্ন থানায় ৮টি হত্যাসহ ডজন খানেক মামলা রয়েছে। মরদেহগুলোর ময়নাতদন্তের প্রক্রিয়া চলছে।