মেইন ম্যেনু

পায়ের জ্বালাপোড়া দূর করুন ঘরোয়া এই ৬ উপায়ে

shutterstock_192344378-1

অনেকের আছেন যাদের পা জ্বালাপোড়া সমস্যা হয়ে থাকে। এটি যেকোন বয়সের যে কারোর হতে পারে। প্রথম দিকে জ্বালাপোড়া কম থাকলেও অনেক সময় এই জ্বালাপোড়া দীর্ঘস্থায়ী হয়। বিভিন্ন কারণে পা জ্বালাপোড়া হতে পারে। এর মধ্যে অন্যতম কারণ হলো স্নায়ুরোগ। ডায়াবেটিস, অতিরিক্ত মদ্যপান, অপুষ্টি বিভিন্ন কারণে স্নায়ুরোগ দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া আর যেসকল কারণে পা জ্বালাপোড়া করতে পারে, সেগুলো হলো ভিটামিনের অভাব( ভিটামিন বি১২ এবং বি৬), দীর্ঘমেয়াদী কিডনি রোগ, থাইরয়েড সমস্যা, এইচআইভি,উচ্চ রক্তচাপ, পানি চলে আসা, ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ইত্যাদি। এই অস্বস্তিকর সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব ঘরোয়া কিছু উপায়ে।

১। ঠান্ডা পানি

একটি পাত্রে বা বোলে বরফ মেশানো পানি নিন। এই পানিতে পা দুটি ভিজিয়ে রাখুন। এইভাবে কিছুক্ষণ থাকুন। দেখবেন পায়ের জ্বালাপোড়া অনেকটা কমে গেছে। এটি দিনে কয়েকবার করুন।

২। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার

পায়ের জ্বালাপোড়া কমাতে অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার বেশ কার্যকর। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগারের পিএইচ লেভেল শরীরের তাপমাত্রায় ভারসাম্য বজায় রাখে। দুই টেবিল চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এক বোল কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণে পা দুটি ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এটি প্রতিদিন করুন। এছাড়া কুসুম গরম পানিতে এক বা দুই চা চামচ ভিনেগার মিশিয়ে পান করতে পারেন।

৩। হলুদ

বহুগুণী হলুদ আপনার পায়ের জ্বালাপোড়া রোধ করতে সাহা্য করবে। কুসুম গরম পানিতে ১-২ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এটি দিনে দুইবার পান করুন। এছড়া দুই টেবিল চামচ হলুদ পানিতে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এটি পা ম্যাসাজ করে লাগান। সাময়িকভাবে পায়ের জ্বালাপোড়া কমিয়ে দেবে এটি।

৪। ইপসোম সল্ট

একটি পাত্রে পানির সাথে ইপসোম সল্ট মিশিয়ে নিন। পানি এবং স্লট ভালো করে মেশান। এই মিশ্রণে পা দুটি ভিজিয়ে রাখুন কয়েক মিনিট। দেখবেন জ্বালাপোড়া অনেকখানি কমে গেছে।

৫। আদা

এক চা চামচ আদার রসের সাথে কুসুম গরম নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি পায়ে ম্যাসাজ করুন ১০-১৫ মিনিট। এটি দিনে একবার করুন। এছাড়া আদা চা পান করতে পারেন। এটিও পায়ের জ্বালাপোড়া কমাতে সাহায্য করবে।

৬। করলার পাতা

এক মুঠো করলার পাতার সাথে কিছু পরিমাণ পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি পায়ে ম্যাসাজ করে লাগান। কয়েকবার ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে এটি পায়ের জ্বালাপোড়া কমিয়ে দেবে।