মেইন ম্যেনু

পায়ের মারাত্মক ৭ সমস্যার লক্ষণ জেনে রাখুন

103752feet_3

১. ব্যথা
আমেরিকান পডিয়াট্রিক মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য জেন অ্যান্ডারসন জানান, পায়ে কোনো ব্যথাই অবহেলা করা উচিত নয়। যেকোনো ধরনের ব্যথাতেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়া প্রয়োজন। এসব ব্যথা বিভিন্ন সমস্যার লক্ষণ প্রকাশ করে। পায়ের ব্যথা সম্পর্কে ধারণা নিন।
ক. অনেকে সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর পায়ে ব্যথা করে। এটি আর্থ্রাইটিস বা প্লান্টার ফ্যাসসিটিসের লক্ষণ হতে পারে। গোটা দিন এ ব্যথা স্থায়ী হতে পারে। যারা হাই হিল জুতা পরেন তাদের গোড়ালিতে ব্যথা করতে পারে। জুতার কারণেই সাধারণ প্লান্টার ফ্যাসসিটিস অংশে ব্যথা হয়।
খ. সারা দিনে ব্যথা ক্রমশ বাজে অবস্থার দিকে যেতে থাকে। ফ্র্যাকচারের কারণে এমন হতে পারে। ওজন বহন করলে ব্যথা বাড়তেই থাকে। পরিশ্রমের সময় খুব বেশি কাজ করা বা ভারসাম্যহীন নড়াচড়ার কারণে ফ্র্যাকচার বা হাড়ে চিড় ধরতে পারে।
২. পায়ের ত্বকের রং বদলে যাওয়া
ত্বকের যেকোনো সমস্যা বুঝতে সাধারণত মুখ ও হাতের ত্বকের রং দেখা হয়। কেউ পায়ের ত্বকের দিকে তাকায় না। অথচ ত্বকের ক্যান্সার সাধারণত প্রথমে পায়েই দেখা দেয়। পায়ের কোথাও স্ফীত বা পিণ্ড দেখা দিলে বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়া দরকার। পায়ের আঙুলের চারপাশে দেখুন।
৩. অসাড় অবস্থা
পায়ে অনুভূতি না পাওয়া মারাত্মক অবস্থা প্রকাশ করতে পারে। রক্ত চলাচলে সমস্যা থাকলে এমন হতে পারে।
ক. পেরিফেরাল আর্টেরি ডিজিস এমন এক সমস্যা যা রক্তনালিকে সরু করে দেয়। ফলে পায়ে অসাড়তা দেখা দেয়। সাধারণত পায়ে এমনটা হয়।
খ. ডায়াবেটিস দেহের রক্ত চলাচলে বাধার সৃষ্টি করে। এ রোগে স্নায়ুতন্ত্রে বিরূপ প্রভাব পড়ে। এতে ত্বক ও রক্তনালি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফলে অনেক সময় এমন হতে পারে—ত্বকে কিছু অনুভূত হয় না। ডায়াবেটিসের কথা না জানা থাকলে এমনটা ঘটতে পারে।
গ. অসাড়তা নিউরোলজিক্যাল সমস্যা বা আর্থ্রাইটিসের জানান দিতে পারে। অনেক সময় অ্যালকোহল পানের কারণেও এমনটা হতে পারে।
৪. পা ফোলা
অনেক সময় ধরে দাঁড়িয়ে থাকলে দুই পা ফুলে যেতে পারে। আঘাতজনিত কারণে ট্যান্ডনে সমস্যা দেখা দিতে পারে। অনেক সময় পায়ের রক্তনালি রক্ত চলাচলের সমস্যা মেটাতে পারে না। সে ক্ষেত্রে পডিয়াট্রিস্ট বিষয়টি পরীক্ষা করে দেখতে পারেন।
৫. শীতল পা
পায়ে সব সময় ঠাণ্ডা অনুভব করলে রক্ত চলাচলে সমস্যা থাকতে পারে। এটা অনেক মানুষের বড় সমস্যা হয়ে দেখা দেয়। ধূমপান, উচ্চরক্তচাপ, হৃদরোগ ও স্ট্রোকের কারণেও এমন হতে পারে।
৬. চুলকানি
ছত্রাকের সংক্রমণের লক্ষণ প্রকাশ করে চুলকানিতে। সাধারণ পায়ের পাতার পাশে বা নিচের দিকে চুলকানি হতে পারে। আঙুলের মাঝেও এমন হতে পারে। ছত্রাকের সংক্রমণ ও চিকিৎসার ভার পডিয়াট্রিস্টের ওপর ছেড়ে দিতে পারেন।
৭. হাঁটায় পরিবর্তন
হঠাৎ করেই চলাফেরা বদলে গেছে আপনার। হাঁটছেন অন্যভাবে। এটা নিউরোলজিক্যাল সমস্যার লক্ষণ বহন করে। এ ছাড়া স্ট্রোক এবং মাল্টিপল স্ক্লেরোসিসের লক্ষণও প্রকাশ করে। অনেক কারণেই স্বাভাবিক হাঁটা নষ্ট হতে পারে আপনার। অসাড়তার কারণে বা হাড়ের সংযোগস্থলে সমস্যার ফলে এমন হতে পারে। এ অবস্থায় আর অপেক্ষায় থাকা ঠিক নয়।

–হাফিংটন পোস্ট অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার