মেইন ম্যেনু

পুরনো কাপড় পুনরায় ব্যবহার করার কিছু সৃজনশীল উপায়

cloth

যখন আমাদের প্রিয় পোশাকটি পুরনো হয়ে যায় তখন ফেলে দেয়া বা মোছামুছির কাজেই ব্যবহার করা হয়। কিন্তু কিছু কাপড়ের সাথে স্মৃতি জড়িয়ে থাকে। বিশেষ করে ছোট বাচ্চাদের পোশাক। এগুলো ফেলে দিতে বা মোছামুছির কাজে ব্যবহার করতে বা কাউকে দিয়ে দিতেও ইচ্ছে করেনা। তাহলে কি করা যায় এগুলো দিয়ে? চলুন জেনে নিই বড় বা ছোটদের পুরনো কাপড় পুনরায় ব্যবহার করার কিছু সৃজনশীল উপায় সম্বন্ধে।

১। কম্বল/ চাদর

যদি আপনার বাসায় অনেকগুলো পুরনো টি-শার্ট থাকে যেগুলোর রঙ নষ্ট হয়নি। সেগুলো সামনের ও পেছনের অংশ সমান করে কেটে নিয়ে একটার সাথে আরেকটা সেলাই করে জোড়া লাগান। সেলাইয়ের পর দেখবেন একটি সুন্দর ও আন-কমন কম্বল তৈরি হয়ে গেছে।

২। পার্স

পুরনো জিন্সের পেছনের পকেটটি কেটে নিন। এটাকে মিনি পার্সে পরিণত করতে এর চারপাশে কিছু অলংকার যেমন- কাঠের বা পুতির মালা, দুল ইত্যাদি দিয়ে সাজিয়ে নিন। এটি যেকোন ছোট মেয়ে শিশুর জন্য হতে পারে চমৎকার একটি গিফট। পুরনো সোয়েটার দিয়েও তৈরি করে নিতে পারেন ছোট পার্স।

৩। স্কার্ফ

পুরনো ভিন্ন রঙের দুটি টি-শার্ট কেটে একটির সাথে আরেকটি জোড়া লাগিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন সুন্দর একটি স্কার্ফ।

৪। জ্যাকেট

আপনার ডেনিমের জ্যাকেটটি অনেকবার পরা হয়েছে বলে এই শীতে আর পরতে ইচ্ছে করছেনা? তাহলে এই পুরনো জ্যাকেটটিকেই নতুন করে তুলতে পারেন সামান্য একটি কৌশলে। জ্যাকেটের হাতা দুটো কেটে আলাদা করে ফেলুন। অন্য একটি পুরনো টি-শার্টের হাতা ও কলার কেটে আলাদা করুন। এবার এই হাতা ও কলারটি সেলাই করে জ্যাকেটের সাথে জোড়া লাগান। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল নতুন একটি জ্যাকেট, যা দেখে কেউ বুঝতেই পারবেন না যে এটি আপনার গত শীতের সেই পুরনো জ্যাকেটই।

৫। বালিশের কভার

টি-শার্ট দিয়ে বালিশ বা কুশন কভার বানানো যায়। এজন্য রঙ নতুনের মতোই আছে এমন একটি টি-শার্টের হাতা ও গলার অংশ কেটে বাদ দিন এবং সামনের ও পেছনের অংশ জোড়া লাগিয়ে বালিশ বা কুশন কভার বানিয়ে নিতে পারেন। পুরনো সোয়েটার কেটেও কুশন কভার বানিয়ে নিতে পারেন। শার্ট পুরনো হয়ে গেলে তা কেটেও সুন্দর কুশন কভার বানানো যায়।

৬। খেলনা জীবজন্তু

শিশুদের টি-শার্টে বিভিন্ন পশুপাখির ছবি থাকে। পুরনো হয়ে গেলে এই টি-শার্টের জীবজন্তুর ছবির অংশটুকু কেটে আলাদা করে নিন। তারপর এর মধ্যে তুলা ভরে সেলাই করে নিন। দেখবেন চমৎকার একটি খেলনা তৈরি হয়ে গেল, যা দেখে আপনার সন্তান খুব অবাক হবে এবং খুশি হবে।