মেইন ম্যেনু

প্রজাপতি মানব সাব্বির

dsc_0911

’উড়লে আকাশে প্রজাপতি ,প্রকৃতি পায় নতুন গতি ’প্রজাপতি ও প্রকৃতি সংরক্ষণে গণসচেতনতা তৈরীর লক্ষ্যে প্রতিবছর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজন করছে প্রজাপতি মেলা। এবারের মেলায় জাবি ছাত্ও সাব্বির আহমেদ খানকে বাটার ফ্লাই ইনথুসিয়াস্ট অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত করা হয় । ঢাকার শেওড়াপাড়ার সাব্বিরের ইট পাথরের শহর ছাড়িয়ে প্রজাপতি মানব হয়ে ্উঠার কথা জানাচ্ছেন শাহাদাত হোসাইন স্বাধীন ,ছবি তুলেছেন আসাফুজ্জামান বিপ্লব ।

সাব্বির আহমেদ ঢাকার মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ঢাকা সিটি কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে ভর্তি হন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণী বিদ্যা বিভাগে । তৃতীয় বর্ষে পড়াকালীন একদিন বন্ধু মহসিনের সাথে দেখা করতে যান প্রাণী বিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক প্রজাপতি গবেষক ড.মনোয়ার হোসেনের সাথে। মহসিন তো রিপোর্ট জমা দিতে এসেছে তুমি কেন এসেছ ? স্যারের এমন প্রশ্নের জবাবে অনেকটা অপ্রস্তুত ভাবে সাব্বির বলে ফেলেন স্যার আমি আপনার সাথে কাজ করতে চায় । ’সে থেকে স্যারের সাথে পথ চলা আর সখ্যতা শুরু প্রজাপতির সাথে’,বলছিলেন সাব্বির আহমেদ । প্রজাপতি গবেষক অধ্যাপক ড. মনোয়ার হোসেনের সাথে কাজ করেছেন রাঙ্গামাটি , বান্দরবন, খাগড়াছড়ি , কক্সবাজার , সিলেট , সুনামগঞ্জ , শ্রীমঙ্গল , মৌলভীবাজার ,ও রংপুরে।

ডি এন এ বার কোডিং নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রে কাজ করেছেন। জাবি প্রজাপতি পার্ক ও গবেষণা কেন্দ্রে প্রজাপতির স্থিতি, প্রাচুর্য এবং সংরক্ষণের দিক গুলো নিয়ে বেশ সফলতার সাথে গবেষণা করছেন ।

প্রজাতি জাত সংরক্ষণে ক্যামেরা হাতে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়িয়েছেন সাব্বির। কাজের সাফল্য ও স্বীকৃতি ও মেলছে। ১১ টি নতুন প্রজাতির সনাক্ত এবং ২০ টি প্রজাপতি সনাক্ত করায় প্রত্যক্ষ সহায়তার জন্য ইয়াং বাটারফ্লাই ইনথুসিয়াস্ট অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন। বর্তমানে প্রজাপতি ও বন্যপ্রাণী নিয়ে সুন্দরবনে কাজ করছেন জিআইজেট ( )নামের একটি র্জামানি ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে ।

পতঙ্গবিদ্যাতে বি এ সি (সম্মান ) তে ১ম শ্রেণীতে ২য় স্থান অধিকার করা এই তরুণ প্রতঙ্গ নিয়ে বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে ইচ্ছুক । শিক্ষা জীবন শেষে পুরোদমে বাংলাদেশের জীব বৈচিত্ও সংরক্ষণের কাজে লেগে যেতে চান সাব্বির।

ইতিমধ্যে প্রজাপতি মানব খেতাবপ্রাপ্ত সাব্বির বলেন. প্রজাপতি সংরক্ষণের জন্য সবার আগে দরকার জন্যগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা এবং আমাদের দেশের প্রজাপতি নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সরকারের আরো আর্থিক সহযোগিতা প্রদান এর ব্যবস্থা করা উচিৎ।

প্রজাপতি,প্রকৃতি সবুজ আর নিরাপদ পৃথিবীর জন্য এগিয়ে আসুক সাব্বিরের মতো তরুণরা ্এমন প্রত্যাশা সবার।