মেইন ম্যেনু

প্রতিদিন ৮ ঘন্টার কম ঘুমোচ্ছেন? জেনে নিন বিপদের আগাম খবর

আজকের ব়্যাবিট দৌড়ের যুগে খাওয়া বা ঘুম, কোনটাই ঠিক সময় মতো মতো হয়না৷ ঠিক কীভাবে স্বল্প পরিমাণ ঘুম ক্ষতি করে মানুষের? বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ঘুমের অভাবের ফলে নানা দিক থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয় শরীর।

শারীরিক সুস্থতার জন্য পর্যাপ্ত ঘুম অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু কম ঘুমের ফল যে শরীরের পক্ষে কতখানি মারাত্মক হতে পারে, তা সাম্প্রতিক একটি সমীক্ষায় প্রকাশ পেয়েছে। পৃথিবীর জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশই দিনে ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা অথবা তার চেয়ে কম সময় ঘুমোন। এর অত্যন্ত ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে শরীরে। কতটা ক্ষতিকর হতে পারে সেই প্রভাব? সেই প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে হার্ভার্ড মেডিকাল স্কুলের একটি রিপোর্ট। সেই রিপোর্টে জানানো হচ্ছে, যাঁরা দিনে আট ঘণ্টার কম ঘুমোন, তাঁদের অস্বাভাবিক মৃত্যুর সম্ভাবনা ১৫ শতাংশ বেড়ে যায়।

১. শারীরিক সমস্যা: ঘু‌ম কম হলে সারাদিন ঘুম ঘুম বোধ করা, ও অবসাদে ভোগার সমস্যা দেখা দেয়। তাছাড়া, অতিরিক্ত খিদে বোধ করার কারণে শরীরে মেদ জমতে পারে। যাঁদের ঘুম কম, তাঁদের চট করে ঠান্ডা লাগার সমস্যা দেখা যায়। যৌন ইচ্ছা হ্রাস পায়, তাছাড়া চামড়াও শিথিল হয়ে আসে দ্রুত।

২. দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব: দীর্ঘদিন ধরে ঘুম কম হতে থাকলে ডায়বেটিস, স্থূলতা, হার্টের রোগ, এমনকী ক্যানসারের সম্ভাবনা পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়। সম্ভাবনা বাড়ে নিউমোনিয়া বা ফুসফুসের রোগেরও।

৩. মানসিক সমস্যা: যাঁদের কম ঘুমনো অভ্যাস, তাঁদের অনেকেই মানসিক অবসাদ ও উদ্বেগে ভোগেন। অল্পেই মেজাজ হারানো, কিংবা সারাক্ষণ মন খারাপের অনুভূতিও দেখা যায় তাঁদের মধ্যে।

অতএব আইসোম্যানিয়ায় যাঁরা ভোগেন, তাঁরা এখনই সতর্ক হোন। প্রয়োজন হলে ডাক্তারের সাহায্য নিন।