মেইন ম্যেনু

ফিলিস্তিনে শান্তি আনবেন ট্রাম্পের কট্টর ইহুদি জামাতা!

gared_kushner_trump_ivanka_31720_1479907182

যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ইসরাইল এবং ফিলিস্তিনিদের মধ্যে শান্তি চুক্তিই তার পছন্দ।

এজন্য জামাতা কট্টরপন্থী ইহুদি জারেড কুশনারকে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নিয়োগ দেয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার নিউইয়র্ক টাইমসকে ট্রাম্প বলেন, একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানে পৌঁছতে দুই পক্ষকেই ‘কিছু ছাড় দিতে হবে’। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ইসরাইলের পক্ষে শতভাগ ভেটো প্রয়োগেরও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ইসরাইল এবং ফিলিস্তিনের ওই পক্ষকে আমি ভালবাসব যে শান্তি চুক্তি করতে এগিয়ে আসবে। এটা অনেক বড় অর্জন।’

তিনি বলেন, ‘অনেক মানুষ, আসলে প্রভাবশালী মানুষই আমাকে বলেন- এটা অসম্ভব, তুমি এটা করতে পারবে না। আমি দ্বিমত পোষণ করি। আমি মনে করি, তোমরা (ইসরাইল ও ফিলিস্তিন) শান্তি চুক্তিতে উপনীত হতে পারবে।’

তবে ট্রাম্পের এই স্বপ্ন আলোর মুখ দেখবে কি না তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় আছে। কারণ কট্টরপন্থী ইহুদি এবং হলোকাস্ট থেকে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তির নাতি জারেড কুশনার শান্তি প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নেবেন এমন ভাবনা অবাস্তব।

মূলত কুশনারকে মন্ত্রী বানাতে চেয়েছেন ট্রাম্প। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের স্বজনপ্রীতি আইনে জামাতাকে মন্ত্রীর বানানোর সুযোগ পাচ্ছেন না তিনি। এজন্য তাকে ‘বিশেষ দূত’ হিসেবে নিয়োগ দিতে চান এই রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট।