মেইন ম্যেনু

ফেসবুকের এই অ্যাপটি শুধুমাত্র টিনএজারদের জন্য!

image-7

এবছর অগস্টেই ফেসবুক লঞ্চ করেছে তাদের টিনএজ অ্যাপ ‘লাইফস্টেজ’। যাঁদের বয়স ২১ বা তারও কম এবং যাঁরা টিনএজে পা দিয়েছেন, তাঁদের জন্যই তৈরি হয়েছে এই সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ। এই অ্যাপটি প্রথমে তৈরি করা হয় শুধুমাত্র আইওএস ইউজারদের জন্য কিন্তু সদ্য এই অ্যাপটি লঞ্চ করা হল গুগল প্লে স্টোরে। অর্থাৎ এখন থেকে অ্যানড্রয়েড ইউজাররাও নিজেদের ফোনে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারবে। কিন্তু ডাউনলোড যিনি করবেন তাঁর বয়স হতে হবে অবশ্যই ২১ বা ২১-এর কম।

যদি কেউ মনে করে থাকেন যে বয়স ভাঁড়িয়ে কমবয়সি সেজে এই অ্যাপ ব্যবহার করবেন তবে সে আশা পূর্ণ হবে না কারণ এখানে রয়েছে ‘রিপোর্ট অর ব্লক ওল্ডার ইউজার্স’ ফিচার। এই অ্যাপটি ভিডিও-নির্ভর। ইউজাররা নিজেদের প্রোফাইল তৈরি করার পরে ইচ্ছেমতো নিজেদের জীবনের নানা মুহূর্তের ভিডিও তুলে আপলোড করতে পারেন অ্যাপে। সেই ভিডিও ক্লিপগুলি একত্র করে তৈরি করা হয় ইউজারদের ভিজ্যুয়াল প্রোফাইল।
একবার কোনও ভিডিও এই অ্যাপে আপলোড করে দিলে সেটি কিন্তু পাবলিক অর্থাৎ এই অ্যাপের সমস্ত ইউজার ওই ভিডিও দেখতে পাবেন। তবে এখানে একটি অপশন রাখা হয়েছে। কোনও বিশেষ বিষয়ে ভিডিও তুলে আপলোড করার পরে যদি ইউজারের মনে হয় যে ভিডিওটি ভাল হয়নি, তবে আবার নতুন ভিডিও তুলে পুরনো ভিডিওটি রিপ্লেস করে দেওয়া যাবে।

সম্প্রতি স্ন্যাপচ্যাট অ্যাপটি খুব জনপ্রিয় হয়েছে টিনএজার এবং ইয়ং অ্যাডাল্টদের মধ্যে। তাই ফেসবুক এই নতুন অ্যাপটি লঞ্চ করে এবার প্রতিযোগিতায় নামল। অ্যানড্রয়েড অ্যাপটি আসার ফলে এবার যে লাইফস্টেজ-এর ডাউনলোডস বাড়বে তা বলাই বাহুল্য। কিন্তু প্রশ্ন হল, ভারতীয় টিনএজারদের মধ্যে কতটা জনপ্রিয় হবে এই অ্যাপ? সেটা আর কয়েকদিনের মধ্যেই হয়তো বোঝা যাবে।



« (পূর্বের সংবাদ)