মেইন ম্যেনু

বাড়ছে স্ত্রী ভাগাভাগির প্রবণতা!

photo-1479566552

অন্যের সঙ্গে স্ত্রীকে ভাগাভাগির প্রবণতা দিন দিন বাড়ছে। অনেক স্বামীই এখন তাঁর স্ত্রীকে অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌনসম্পর্ক করার অনুমতি দিচ্ছেন।

বর্তমানে হাজার হাজার পুরুষ সমাজের নিষিদ্ধ এই প্রথার দিকে ঝুঁকছেন। তবে এই প্রবণতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণ এখনো স্পষ্ট নয়। মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, এই পুরুষরা তাঁদের স্ত্রীদের স্বাধীন যৌনতায় গর্ববোধ করেন।

স্ত্রী বা বান্ধবী ভাগাভাগিবিষয়ক অনলাইন গোষ্ঠীর ব্যাপক প্রসার ঘটছে। আর সার্চ ইঞ্জিন গুগলে এই ভাগাভাগির বিষয়টি চলতি সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি খোঁজা হয়েছে, গত ১২ বছরের মধ্যে যা দ্বিগুণ।

এক ব্যক্তি জানান, দুই বছর আগে অন্য পুরুষের সঙ্গে দেখার পরও তিনি ওই নারীকে বিয়ে করেছিলেন।

একজন বিবাহিত নারী কীভাবে এ বিষয়ে উৎসাহিত হয়েছিলেন তার বিস্তারিত জানিয়েছেন। তিনি জানান, তাঁর স্বামী তাঁকে খুদেবার্তা পাঠিয়ে প্রলুব্ধ করার চেষ্টা করতেন।

ওই নারী বলেন, ‘স্বামীর সঙ্গেই বেশি বেশি যৌনক্রিয়ায় আমি বিশ্বাস করি না, আমি আমার ছেলেবন্ধুর (বয়ফ্রেন্ড) সঙ্গে থাকতে চাই।’

একই সঙ্গে স্বামী ও বয়ফ্রেন্ড থাকায় এই নারী খুবই খুশি। তিনি বলেন, ‘আমি সত্যিই ভাগ্যবতী।’

আরেকজন জানান, বিষয়টি নিয়ে তিনি তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে গেম খেলতে পছন্দ করতেন। যখন তাঁর স্ত্রী একই সময়ে অন্য নারীর সঙ্গে ঘুমানোর অনুমতি দেন এবং বলেন এক মাসের মধ্যে আর এই নারী পরিবর্তন করা যাবে না, তখন সেটা একটা মজার অংশ।

লেখক ড. ডেভিড জে লেই তাঁর একটি লেখায় উল্লেখ করেছেন, এটি হতে পারে সমাজের স্বাভাবিক নিয়মকে অসমর্থন করা।

সাইকোলজি টুডেকে ড. ডেভিড বলেন, একজন স্ত্রী অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করছেন এটি গভীরভাবে ভাবার বিষয়।

সুত্রঃ এনটিভি