মেইন ম্যেনু

বিপিএলে এবার শুরু হচ্ছে দুই বন্ধুর লড়াই

1479354224

জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার দুইজনেই। একজন দেশসেরা ব্যাটসম্যান আর অন্যজন দেশসেরা ক্রিকেটার। দুই বন্ধু বললেই ধরে নেয়া হয় সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের কথা। সাকিব বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সেই সঙ্গে জাতীয় ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের সহ-অধিনায়ক। আর তামিম ইকবাল দেশের হয়ে তিন ফরমেটের ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানের মালিক সেই সঙ্গে টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) চতুর্থ আসরে চট্টগ্রাম পর্বে আজ মুখোমুখি হচ্ছেন দেশের সেরা এ দুই ক্রিকেটার। আজ তামিমের চিটাগং ভাইকিংসের অন্যতম চ্যালেঞ্জ সাকিবের ঢাকা ডায়নামাইটস।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচ শুরু দুপুর (বৃহস্পতিবার) ১টায়। চলতি বিপিএলে ৪ ম্যাচে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে রয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস। অন্যদিকে ৪ ম্যাচের মাত্র ১টিতে জয় দেখেছে তামিম ইকবালের চিটাগং ভাইকিংস। তাই তালিকায় নিজেদের উন্নতি দেখতে চাইলে জয়ের বিকল্প নেই তামিমদের। গতকাল অনুশীলন করেছে দুদলই।

এক ফাঁকে ভাইকিংসের তরুণ ক্রিকেটার এনামুল হক বিজয় বলেন, ‘আমরা কিছু ভুল করেছি। কিছুটা দুর্ভাগ্যও বলা চলে। সব মিলিয়ে আমাদের শেষ তিনটা ম্যাচ ভালো যায়নি। অবশ্য আমাদের চট্টগ্রাম পর্ব যেন ভালো কাটে এমন কিছু করতে চেষ্টা করবো। এখানে ৪টা ম্যাচ আছে। এখনো সুযোগ আছে আমাদের হাতে। ৪টার মধ্যে যদি তিনটি ম্যাচ জিততে পারি, তাহলে মোমেন্টাম ঘুরে যেতে পারে।’

কাগজে কলমে সেরা দলই মানা হচ্ছে ঢাকা ডায়নামাইটসকে। আর মাঠের খেলায়ও তেমন ঝলক দেখাচ্ছেন ডায়নামাইটস তারকারা। ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন নিয়ে তিন নম্বরে ব্যাট করতে দেখা যাচ্ছে জাতীয় তারকা নাসির হোসেনকে। এতে সফলও ঢাকা ডায়নামাইটসের এই অলরাউন্ডার। গতকাল অনুশীলনের ফাঁকে নিজেদের লক্ষ্য নিয়ে নাসির বলেন, ‘আমরা এখন পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছি। এখন স্থানটা ধরে রাখতে চাই। আর চট্টগ্রাম পর্বেও এক নাম্বার দল হিসেবে শেষ করতে চাই।’ নিজেদের মাঠে নামার আগে চিটাগং ভাইকিংসের অবস্থা ভালো নয়।

চার ম্যাচের তিনটিতে হেরে তাদের সংগ্রহ মাত্র ২ পয়েন্ট। তবে আজ গোটা স্টেডিয়ামের সমর্থন থাকবে ভাইকিংসের পক্ষেই। কিন্তু ঢাকা ডায়নামাইটস এ নিয়ে ভাবছে না। নাসির বলেন, ‘হোম টিমের সঙ্গে খেলা, বিষয়টাকে আমরা ওভাবে দেখছি না। আমাদের কাছে এটা কেবল আরেকটা ম্যাচ। আমাদের প্রস্তুতি ভালো। আশা করি ভালো একটি ম্যাচ হতে যাচ্ছে।’ নতুন পজিশনে নিজের ব্যাটিং নিয়ে নাসির বলেন, ‘অবশ্যই ভালো লাগছে। রান যেখানেই করেন না কেন, ভালো লাগেই। এগারো নম্বরে নেমেও রান করতে পারলে ভালো লাগতো।’

ঢাকা পর্বে ভাইকিংস জয় দিয়ে শুরু করলেও পরের ম্যাচগুলোতে চরম ব্যাটিং ব্যর্থতায় হেরে যায়। দলের পক্ষে একমাত্র অধিনায়ক তামিমই ব্যাট হাতে বড় অবদান রাখতে সক্ষম হচ্ছেন। আসরে ২টি ফিফটি হাঁকিয়েছেন তামিম। এনামুল হক বিজয় বলেন, ‘আসলে দুর্ভাগ্যই বলবো। আমরা কয়েকটি ম্যাচ জেতার কাছে গিয়েও হেরে গেছি। বিশেষ করে ব্যাটিংটা আমাদের ভালো হয়নি।’ দলের ব্যাটিং যেমন ভালো হয়নি। তেমননি দলের জন্য ব্যাট হাতে বড় অবদান রাখতে পারেননি বিজয়ও। গত চার ম্যাচে তার ব্যাট থেকে এসেছে ২২, ২৫, ১৪ ও ২৭ রান।

তাই ইনিংস বড় না করাকে দুর্ভাগ্য বলছেন এনামুল, ‘সব মিলিয়ে আমি দুর্ভাগা বলবো। দুই ম্যাচে রান আউট হয়ে গেছি। এক ম্যাচে ভালো করতে পারিনি। কালকে মোটামুটি একটা ব্যাটিং হয়েছে। আশা করছি সুযোগ আছে। এখনো ৮টা ম্যাচ আছে। সুযোগ আছে ভালো কিছু করার। এখনো সুযোগ হাতছাড়া হয়নি।’ এছাড়াও চট্টগ্রামে ভাইকিংসরা তাকিয়ে তাদের বিদেশি ক্রিকেটারদের দিকে। এই পর্যন্ত এই দলের বিদেশিদের পারফরম্যান্স আহামরি কিছু না। টি-টোয়েন্টির দানবখ্যাত ক্রিস গেইলের চট্টগ্রাম ভাইকিংসের হয়ে মাঠে নামার কথা। কিন্তু দলটির একটি সূত্র জানায় গেইলকে তারা পাচ্ছেন না এই পর্বেও।