মেইন ম্যেনু

ব্রহ্মোস মিসাইল ছোঁড়ার প্রস্তুতি ভারতের!

1476960655

একদিকে ব্রহ্মোস মিসাইলকে আরও উন্নত ও ক্ষিপ্র করার গবেষণা চালাচ্ছে ভারত ও রাশিয়া। অন্যদিকে এই সুপারসনিক (শব্দের চেয়ে দ্রুত) মিসাইলের এয়ার-ভার্সানের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

সূত্রের খবর, আগামী ডিসেম্বরে ভারতীয় বায়ুসেনার প্রধান ভরসা সুখোই-৩০ এমকেআই বিমান থেকে একটি ব্রহ্মোস মিসাইলকে নিক্ষেপ করা হবে। জানা গিয়েছে, মিসাইলটির টার্গেট হিসেবে ব্যবহার করা হবে একটি ডি-কমিশনড(অবসৃত) রণতরীকে।

এই প্রথম ব্রহ্মোস-কে কোনও বিমান থেকে নিক্ষেপ করা হবে। এর আগে মিসাইলের ল্যান্ড-লঞ্চ (ভূমি থেকে উৎক্ষেপণ), সি-লঞ্চ (জাহাজ থেকে উৎক্ষেপণ) এবং আন্ডারওয়াটার লঞ্চ (সাবমেরিন থেকে উৎক্ষেপণ) সাফল্যের সঙ্গে করা হয়েছে। বাকি ছিল এয়ার-লঞ্চটাই।

ব্রহ্মোস এরোস্পেস-এর এক কর্তা জানান, ব্রহ্মোসকে বিমান থেকে নিক্ষেপ করাটা এতটাও সহজ নয়। তিনি মনে করিয়ে দেন, বিশ্বে আর কোথাও এত ভারি মিসাইলকে বিমান থেকে নিক্ষেপ করা হয় না। অনেক বিষয়ের ওপর নজর রাখতে হয়।

তিনি জানান, বর্তমানে, সুখোই বিমানে মিসাইল লাগিয়ে লাগাতার সর্টি (উড়ান) অনুশীলন করছেন পাইলটরা। লক্ষ্য একটাই, মিসাইলের ভারের সঙ্গে বিমানকে অভ্যস্ত করা। একবার তা হলে ডিসেম্বরে প্রথমবার মিসাইলকে নিক্ষেপ করা হবে।

ওই কর্তা জানান, পরীক্ষা সফল হলে, ভারতীয় বায়ুসেনার ক্ষমতা ও সক্ষমতা বহুগুণ বেড়ে যাবে। এক কথায়, বিশ্বের আর কোনও বায়ুসেনার এত ক্ষমতা থাকবে না। তিনি যোগ করেন, আকাশ থেকে এই অত্যন্ত দ্রুতগতির ক্রুজ মিসাইলকে নিক্ষেপ করে শত্রুর যে কোনও জায়গা নিমেষে গুঁড়িয়ে দিতে পারবে ভারত। ব্রহ্মোসের সঙ্গে পাল্লা দেবে, এমন কোনও মিসাইল নেই কারও কাছে। কারণ, এটিই এই মুহূর্তে বিশ্বের দ্রুততম ক্রুজ মিসাইল।-এবিপি আনন্দ