মেইন ম্যেনু

ভারতের হামলায় ১৫ পাক সেনা নিহত : বিএসএফ

indian_solidiers_28941_1477647581

ভারত-পাকিস্তান আন্তর্জাতিক সীমান্তের বিভিন্ন স্থানে পাকিস্তানের ১৫ জন রেঞ্জার নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ।

গত এক সপ্তাহে ভারতীয় সেনা ও বিএসএফের গুলিতে ১৫ জন পাক রেঞ্জার নিহত হয়েছে বলে দাবি করেন বিএসএফ এডিজি অরুণ কুমার।

এবিপি আনন্দের খবরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক সীমান্তের কাঠুয়া, হীরানগর, আরনিয়া, আরএস পুরা, আখনুর ও সাম্বায় রাতভর পাক রেঞ্জার্সের গুলিবর্ষণ চলে।

এছাড়াও ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখায় তাংধার ও পুঞ্চ সেক্টরে গুলি ও মর্টার হামলা চালায় পাকিস্তান। নৌসেরা সেক্টরেও পাক রেঞ্জার্স গুলি চালায়।

বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে জম্মুর কাঠুয়া সেক্টরে বিএসএফের সীমান্ত চৌকি লক্ষ্য করে গুলি ও মর্টার ছুড়তে শুরু করে পাক রেঞ্জার্স। পরে হীরানগর ও সাম্বা সেক্টরেও পাক গোলাবর্ষণ শুরু হয়।

বিএসএফের পাল্টা জবাবে পিছু হঠতে বাধ্য হয় পাক রেঞ্জার্স। এতে পাকিস্তানের বেশ কয়েকটি সেনা ছাউনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বিএসএফের পাল্টা জবাবে কাঠুয়ায় সীমান্তের ওপারে পাকিস্তানকে বেশ ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে। ওই এলাকায় পাকিস্তানের অ্যাম্বুলেন্সের চলাচল করতে দেখা গেছে।

সূত্রের বরাতে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিএসএফ ডিজির সঙ্গে কথা বলেছেন।তিনি বিএসএফকে পাকিস্তানের গুলিবর্ষণের সমুচিত জবাব দিতে বলেছেন। তবে কোনওভাবেই যাতে প্রথমে গুলি চালাতে বারণ করেছেন।

এদিকে নিয়ন্ত্রণ রেখায় চলতি গুলিবর্ষণের ঘটনা সম্পর্কে বিএসএফ ডিজি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে অবহিত করেছেন।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের উরিতে হামলার পর পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরে ঢুকে ‘সার্জিক্যাল’ হামলা চালানোর দাবি করে ভারত।

এরপর সীমান্ত ও নিয়ন্ত্রণ রেখায় ধারাবাহিকভাবে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে গুলিবিনিময় করছে ভারত ও পাকিস্তান। যার ফলে নিয়মিত উভয়ে দেশের সেনারা নিহত হচ্ছেন।



« (পূর্বের সংবাদ)