মেইন ম্যেনু

ভেজাল প্যারাসিটামলে শিশুমৃত্যুর মামলায় সব আসামি খালাস

96b3bbf815f42d979dc00f7e1e31689b-583bd54997988

বাদীর অদক্ষতা, অবহেলার কারণে ভেজাল প্যারাসিটামল পানে শিশুমৃত্যুর ঘটনায় সাত বছর আগে দায়ের করা মামলার সব আসামি খালাস পেয়েছেন। ঢাকা ওষুধ আদালতের বিচারক এম. আতোয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

আজকের (সোমবার) রায়ে খালাস পান রিট ফার্মাসিউটিক্যালের মালিক মিজানুর রহমান, তার স্ত্রী ও কোম্পানি পরিচালক শিউলি, পরিচালক আব্দুল গণি ও ফার্মাসিস্ট মাহাবুবুল ইসলাম, এনামুল হক।

২০০৯ সালের জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে কিডনি নষ্ট হয়ে যাওয়ায় প্রায় ২৮ জন শিশু মারা যায়। এর ফলে ড্রাগ কর্তৃপক্ষ ২২ জুলাই রিড ফার্মার কারখানাটি বন্ধ করে দেয়। এঘটনায় সরকার সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করে।

২৯ জুলাই তদন্ত কমিটি ঘোষণা করে, তারা রিড ফার্মার সিরাপে বিষাক্ত পদার্থ ডাই-ইথানল গ্লাইকল শনাক্ত করা হয়েছে। উৎপাদন ব্যয় কমাতে রিড ফার্মা প্রোপাইলন গ্লাইকল ব্যবহারের পরিবর্তে এটা ব্যবহার করত।

সে সময় সরকার রিড ফার্মার রিডাপ্লেক্স (ভিটামিন-বি কমপ্লেক্স সিরাপ) এবং টেমসেট (প্যারাসিটামল সাসপেনশন) নামে দুইটি ড্রাগ নিষিদ্ধ করে।

ড্রাগ সুপারিনটেনডেন্ট শফিকুল ইসলাম ২০০৯ সালের ২১ জুলাই ঢাকার একটি আদালতে রিড ফার্মার পাঁচ কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করে মামলাটি দায়ের করেন। অভিযুক্তরা হলেন-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিজানুর রহমান, মিজানুরের স্ত্রী পরিচালক শিউলী রহমান, আব্দুল গণি,ফার্মাসিস্ট মাহবুবুল ইসলাম এবং এনামুল হক।

মামলার অবজারভেশনে আদালত বলেন, এ মামলায় বাদীর অযোগ্য, অবহেলা, অদক্ষতায় এই আসামিরা খালাস পেলেন। বাদী স্যাম্পল সংগ্রহের সময় কোম্পানি থেকে না করে শিশু হাসপাতাল থেকে করায় প্রকৃত ফল পাওয়া যায়নি।