মেইন ম্যেনু

ভ্রমণে বদলায় আচরণ!

ফারিন সুমাইয়া : ভ্রমণের ক্ষেত্রে মানুষ সবার আগে সেই জায়গাটিই বেছে নেয় যে জায়গাটিতে মানুষের কখনো যাওয়া হয়নি। নতুন জায়গা মানুষকে যেমন আনন্দ দেয় তেমনি অনেক নতুন নতুন কিছু শিক্ষাও দেয়। আর এই শিক্ষা মানুষকে নানাভাবে অনুপ্রাণিত করে।

সবচেয়ে বেশি করে আচরণের দিক থেকে। আচরণে বিশাল পরিবর্তন আনে এই ভ্রমণ। আপনার ক্লান্তি, আপনার মন খারাপকে খুব সহজেই দূর করে দিতে পারে ছোটখাটো একটু ঘুরোঘুরি। তাই নিজের ভেতরে পরিবর্তন আনতে আপনি আশেপাশে ঘুরার জন্য চটপট ব্যাগ গুছিয়ে নিতে পারেন।

নিজের পছন্দের প্রতি আকর্ষণ বাড়ায়
আপনি যখন সব কিছু নিয়ে খুব বিরক্ত থাকবেন তখন আপনার কাছের সবচেয়ে পছন্দের তালিকাতে থাকা কাজগুলোও বিরক্ত লাগবে। আপনি নিজের থেকে পালিয়ে বাঁচতে চাইছেন, কিন্ত পারছেন না। এই অনুভূতিটা মানুষের সবচেয়ে খারাপ মুহুর্তের অংশ। তাই নিজেকে আবারো আগের জায়গায় ফিরিয়ে আনতে ভ্রমণ সবচেয়ে সহজ সমাধান। তাই নিজের কাজের প্রতি ভলোবাসা আর আচরণকে স্বাভাবিক করতে এখনি ভ্রমণের প্রস্তুতি নিন।

নতুনত্ব
পুরোনোকে আকড়ে বেঁচে থাকার মানে নেই। আর নতুনকে জানার মাঝে রয়েছে অনেক লুকায়িত সম্ভাবনা। যা আপনাকে নতুন কিছু করতে সাহায্য করবে। আর এর প্রথম প্রস্তুতি হচ্ছে নিজেকে তৈরি করা। নিজের আচরণে পরিবর্তন আনা। আর সেই পরিবর্তনকে কাজে লাগানো। ভ্রমণ আপনাকে সেই পরিবর্তন আনতে সাহায্য করে।

আত্মবিশ্বাসী
ভ্রমণ আপনাকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলে। আপনি যখন কোনো নতুনত্বের দিকে যান এবং সফল হোন, সেটা যতোই ছোট হোক আপনাকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলবে। আপনি নিজের ভেতর পরিবর্তন লক্ষ্য করতে থাকবেন।

সৃজনশীলতা
মানুষ যা দেখে তাই তার জীবনে ব্যবহার করতে চায়। তা হোক কোনো শেখার জিনিস কিংবা পুরোনো কিছু থেকে। নতুন কিছু শিখতে চাই নতুন জায়গা। তার জন্য ভ্রমণের চেয়ে ভালো কিছু হতেই পারে না। যা আপনাকে নতুন কিছু ভাবতে এবং আচরণে পরিবর্তন আনতে সাহায্য করবে।