মেইন ম্যেনু

মদনে প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নের টাকা হরিলুঠ

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি : নেত্রকোনার মদন উপজেলায় ২০১৫/১৬ অর্থ বছরে প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রকল্পে কয়েক লাখ টাকা বরাদ্ধ দেয়া হলেও নামে মাত্র কাজ করে সিংহভাগ টাকা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আত্মসাৎ করেছে বলে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগে প্রকাশ, ২০১৫/১৬ অর্থ বছরে উপজেলার ৭৫ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্লিপ প্রকল্পের আওতায় প্রত্যেকটিতে ৪০হাজার টাকা,ল্যাট্ট্রিন মেরামতের জন্য ১৯টি বিদ্যালয়ে প্রত্যেকটিতে ১৯হাজার টাকা, ৯০টি বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাথমিক উপকরণ ক্রয়ের জন্য প্রত্যেকটিতে ৫ হাজার টাকা ,৭ টি বিদ্যালয় মেরামতের জন্য প্রত্যেকটিতে এক লাখ টাকা করে বরাদ্ধ দেয়া হয়। বরাদ্ধকৃত টাকা নামে মাত্র কাজ করে সিংহভাগ টাকা দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জিয়াউল হকের যোগসাজুশে প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে।

নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির ও ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম জানান, আমাদের সাথে কোন আলোচনা না করেই স্লিপের ৪০হাজার টাকা, ল্যাট্ট্রিন মেরামতের ১৯ হাজার টাকা,প্রাক-প্রাথমিকের উপকরনের ৫ হাজার টাকা সংশ্লিষ্টরা উত্তোলন করে বিল্ডিং এ নামে মাত্র রং করে বাকি টাকা আতœসাৎ করেছে । এ বিষয়ে তিনি বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের বরাবরে অভিযোগ দায়ের করেছেন। কাজী রাজ আলী আকন্দ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম জানান, স্কুলের নামে বরাদ্ধকৃত টাকা সম্পর্কে প্রধান শিক্ষকেই বলতে পারবেন। শুধু আমার স্বাক্ষর নেয়া হয়।

নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জাম ভুইঁয়া জানান, আমার স্কুলে রং করেছি বাকি কাজ অতিশীগ্রই সম্পূর্ন করব।
উপজেলা সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউর রহমান টাকা আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, সব স্কুলে সঠিক ভাবে কাজ হয়েছে।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো ঃ আবুল হোসেন জানান, আমি নতুন কর্মন্থলে যোগদান করেছি। আতœসাতের অভিযোগের প্রেক্ষিতে মাখনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করে অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে বলেছি। বাকি বিদ্যালয় গুলো পরিদর্শন করে যথাযত ব্যবস্থা নেব ।