মেইন ম্যেনু

মন খারাপ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি-সম্পাদকদের

bcl-leader20161030203104

আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে পদপ্রত্যাশী হিসেবে রাজনীতির মাঠে সক্রিয় ছিলেন এক ঝাঁক সাবেক ছাত্রনেতা। তবে সাবেক ছাত্রনেতাদের অধিকাংশই ৮১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির ঘোষিত ৭৪ পদে স্থান পাননি। কমিটিতে স্থান না পাওয়ায় অনেকেরই মন খারাপ। এ তালিকায় রয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকও।খবর জাগো নিউজের।

সম্মেলনে পদ পেতে পারেন এমন আলোচনায় ছিলেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাহালুল মজনুন চুন্নু। এছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হতে পারেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী, রংপুর বিভাগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হতে পারেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবালুর রহীম, আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পেতে পারেন ছাত্রলীগের আরেক সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী খান পান্না-এমন সব আলোচনাই জমে উঠেছিল এবারের সম্মেলনে।

এছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্যপদে আসতে পারেন এমন আলোচনায় ছিলেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বাহাদুর বেপারী, লিয়াকত সিকদার, মাহমুদ হাসান রিপন, সাধারণ সম্পাদক অজয় কর খোকন, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বলরাম পোদ্দার। কমিটিতে এদের কেউ-ই সদস্যপদ না পাওয়ায় মন খারাপ তাদের।

আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পেতে পারেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাহবুবুল হক শাকিল -এমন গুঞ্জনও ছিলো রাজনীতির মাঠে। তবে সম্মেলনের পর তা আর দেখা যায়নি।

রোববার মাহবুবুল হক শাকিল তার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের অনেককে এই কাউন্সিলে মূল্যায়ন করার জন্য। নবনির্বাচিত নেতাদের কারো কারো নেতৃত্বে একজন নগণ্য কর্মী হিসেবে ছাত্রলীগ করেছি আবার অনেকেই বন্ধু, সহকর্মী বা অনুজ। সবার প্রতি শুভেচ্ছা। যারা প্রত্যাশী ছিলেন তাদের জন্য উজ্জ্বল আগামীর আশাবাদ। আসুন, ঐক্যবদ্ধ থাকি বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে।’

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আপার আশীর্বাদ পর্যায়ক্রমে ঘুরতে থাকে সুতরাং কেউ মন খারাপ কইরেন না, কারও পরিশ্রম বৃথা যায় না।’

ফেসবুকজুড়ে নানাভাবেই মন খারাপের কথা প্রকাশ করছেন সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের অনুসারীরাও। ফেসবুক স্ট্যাটাসে অতীতে রাজনীতির মাঠে সাবেক এই নেতাদের কর্মকাণ্ডের ছবি পোস্ট করে লিখছেন নানা কথা।