মেইন ম্যেনু

মাগুরায় গৃহবধু ধর্ষিত, মোবাইলে ভিডিও ধারণ

rape

মাগুরা প্রতিনিধি ॥ মাগুরা সদর উপজেলার আলমখালী এলাকায় এক গৃহবধুকে ধর্ষণ করে ধর্ষনের দৃশ্য ভিডিও রেকর্ড করেছে দুর্বত্তরা। স্বামীর সাথে পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে ধর্ষিতা অভিযোগ করেছে।

ধর্ষিতার বাড়ি মাগুরা শহরের খালকুল পাড়ায়। সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধিন ওই গৃহবধু জানায়, দীর্ঘদিন সে ও তার ৩ সন্তানের খোঁজ খবর না নেয়ায় স্বামী ইয়ারুল ইসলামের নামে তিনি সম্প্রতি মাগুরা আদালতে মামলা করেন। এই মামলায় স্বামী দুই মাসের জন্য জেল হাজতে ছিল। মামলা দায়েরের পর থেকেই স্বামী ইয়ারুল তাকে দেখে নেয়ার হুমকী দিয়ে আসছিল। এরই এক পর্যায়ে সে জেল থেকে বেরিয়ে তার ওপর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে।

বুধবার বিকালে মোবাইল ফোনে অজ্ঞাত অপর এক মহিলা তার সাথে স্বামীর সাথে বিরোধ মেটানোর জন্য এক ফকিরের কাছ থেকে তদবির নিয়ে দেয়ার কথা বলে তাকে আলমখালী এলাকার একটি ইট ভাটায় ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে পৌছানো মাত্রই তাকে একটি ঘরের মধ্যে আটকে অপর এক ব্যক্তি ধর্ষণ করে।

পাশাপাশি অন্য কয়েকজন ব্যক্তিকে দিয়ে ধর্ষণের দৃশ্য ভিডিও করে এ ঘটনা নিয়ে মামলা করলে এটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়া হবে বলে হুমকী দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। পরে অসুস্থ অবস্থায় ওই গৃহবধু সন্ধ্যার দিকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। ধর্ষণকারির নাম সালফাত বলে জানিয়েছেন ওই গৃহবধূ।

সে ছোট আবালপুর গ্রামে থাকে। ধর্ষনের দৃশ্য মোবাইলে ধারণকারি তার স্বামী ইয়ারুলের ভগ্নিপতি বাবুল হোসেন বলে সে আরো জানায়। তার বাড়ি মাগুরার শালিখায়। অভিযুক্ত স্বামীর বাড়ি মাগুরা শহরের ভায়না এলাকায়।

এ বিষয়ে মাগুরা সদর থানার এস আই শামীম হোসেন জানান, ধর্ষিতা ও তার বাবার বাড়ির লোকজনের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দোষীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।