মেইন ম্যেনু

মাগুরায় চাঞ্চল্যকর জোড়া হত্যা মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামীর আদালতে আত্মসমর্পন

মাগুরা প্রতিনিধি ॥ মাগুরায় ২৬ বছর আগে চাঞ্চল্যকর রওশন ও ছাত্তার হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন দন্ডাদেশপ্রাপ্ত পলাতক আসামী আবু কালাম বৃহস্পতিবার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পন করেছে। গত ২ নভেম্বর এক রায়ে এ মামলার একমাত্র অভিযুক্ত আসামী হিসাবে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদে দেন আদালত।

১৯৯০ সালের ২১ ডিসেম্বর প্রতিপক্ষ চরমপন্থিদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হয় মাগুরা সদরের দোড়ামতনা গ্রামের রওশন মোল্যা ও শালিখার তেঘরিয়া গ্রামের আব্দুস ছাত্তার। এই জোড়া খুনের ঘটনায় মামলা দায়েরের দীর্ঘ ২৬ বছর পর গত ২ নভেম্বর উল্লেখিত রায় ঘোষিত হয়। ঘটনার পর থেকেই এ মামলার অন্যতম আসামী আবু কালাম পলাতক ছিল।

রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী সৈয়দ ফিরোজুর রহমান জানান, ১৯৯০ সালের ২১ ডিসেম্বর আসামীরা পূর্বের একটি মামলা মিমাংসার কথা বলে রওশন মোল্যা ও তার সঙ্গী আব্দুস ছাত্তারকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করে। পরদিন সকালে পার্শবর্তী মালঞ্চী গ্রামের মাঠের মধ্যে রওশনের মস্তক বিচ্ছিন্ন ও আব্দুস ছাত্তারের ক্ষত বিক্ষত লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় রওশনের স্ত্রী ভানু বিবি বাদী হয়ে ৯ জনের নামে মামলা দায়ের করে। ঘটনার ২৬ বছর পর গত ২ নভেম্বর এই মামলার পুলিশী রিপোর্ট ও স্বাক্ষ্য প্রমাণাদির ভিত্তিতে বিজ্ঞ বিচারক আবু কালামকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ ও অন্যদের বেকসুর খালাসের রায় দেন। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত আবুল কালাম পলাতক থাকায় তার অনুপস্থিতিতেই রায় ঘোষিত হয়। এই রায় ঘোষণার ২১ দিন পর যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত একমাত্র আসামী আবুল কালাম বৃহস্পতিবার মাগুরার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ আরাফাত হোসাইনের আদালতে আত্মসমর্পন করেন। পরে তাকে মাগুরা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।