মেইন ম্যেনু

মাত্র ৪ বছর বয়সে বিশ্বে আর কারো এই অর্জন নেই!

baby2

রাশিয়ার ৪ বছরের শিশু বেল্লা ডেভেয়াটকেনা। ৭টি ভাষায় কথা বলে বিরল নজির সৃষ্টি করেছে সে। সম্প্রতি রাশিয়ান এক টিভি শোতে সাত ভাষায় কথা বলে তাক লাগিয়ে দিয়েছে বেল্লা। ভাষাগুলো মোটেও সহজ নয়। চাইনিজ ও আরবির মত জটিল ভাষাও রপ্ত করেছে সে।

রাশিয়ান রিয়েলিটি শো ‘উডিভিটেলনিয়া লিউডি’। ‘উডিভিটেলনিয়া লিউডি’-এর বাংলা অর্থ ‘অবিশ্বাস্য মানুষ’। দেশটি থেকে অবিশ্বাস্য মানুষদেরকে হাজির করা হয় এ শোতে। তবে, মাত্র ৪ বছরের শিশুর সাবলিল সাত ভাষা শুনতে পাবেন বলে কেউ ধারণাও করেননি।

এ বিস্ময় মেয়ের মা জানান, মাত্র ২ বছর তখন থেকে বেল্লা ইংরেজি ভাষা শেখা শুরু করে। তিনিই তাকে সাবলিলভাবে ইংরেজি ভাষা বলতে শিখিয়েছেন। তিনি ভেবেছিলেন রাশিয়ান ভাষার পাশাপাশি ইংরেজিটা শিখলেই যথেষ্ট। তিনি লক্ষ্য করেন ভাষা শেখার প্রতি বেল্লার আগ্রহ ক্রমেই বাড়ছে। তাই তিনি এক এক করে জাতিসংঘের অফিসিয়াল ভাষাগুলো শেখার জন্য শিক্ষক নিয়োগ দেন। আর মাত্র ৪ বছর বয়সেই ইংরেজি, জার্মানি, ফ্রেঞ্চ, স্প্যানিস, চাইনিজ ও আরবি ভাষা শিখে ফেলে বেল্লা। আর মাতৃভাষা রাশিয়ান তো রয়েছেই।

টিভি রিয়েলিটি শোতে দেখা যায়, মঞ্চে ৭ ভাষায় পারদর্শি ৭ জন ব্যক্তি দাঁড়িয়ে আছেন। আর এক এক করে ৭ জনের সাথেই ৭টি আলাদা ভাষায় সাবলিলভাবে কথা বলছে বেল্লা। অতিথিদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরও দিচ্ছে। আবার তাদেরকে পাল্টা প্রশ্নও করছে।

বেল্লার এত সাবলিলভাবে সাত ভাষায় কথার বলতে দেখে বিচারক তো অবাক। কারণ এতো কম বয়সে ৭টি আন্তর্জাতিক ভাষায় কথা বলা মানুষ তিনি আগে কখনো দেখেননি।

ভাষাবিদরাও বেল্লার এমন কৃর্তি দেখে অবাক হয়েছেন। এক ভাষাবিদ বলেন, ‘এমন রেকর্ড খুবই বিরল। তবে সে কতদিন তার ভাষাগুলো ধরে রাখতে পারে সেটিই আসল কথা। কারণ, নিয়মিত ব্যবহার না করলে একদিন ভাষাগুলো ভুলে যাবে। তাই তাকে সবসময় ভাষাগুলো ব্যবহারের মধ্যে থাকতে হবে।’

এ ক্ষুদে ভাষাবিদ বেল্লার বড় হয়ে মৎসকন্যা হতে চায়। মৎসকন্যা হয়ে মাছসহ সামুদ্রিক প্রাণিদের সাথে কথা বলতে চায় সে। তার ধারণা সে এক সময় সামুদ্রিক প্রাণিদের ভাষাও শিখে ফেলতে পারবে।