মেইন ম্যেনু

১৬৬৮ জন ভারতীয় সেনাকে ‘মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা’ দিচ্ছে বাংলাদেশ

bb-4

বাংলাদেশ সরকার ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে নিহত ভারতীয় নাগরিকদের ‘মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা’ ও অর্থ-সহায়তা দিতে যাচ্ছে ।

আগামী মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরের সময় সাতজনের পরিবারের কাছে এই সম্মাননা তুলে দেয়ার মধ্য দিয়ে এই প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।

সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা এবং অর্থ সহায়তা হিসেবে পাঁচ লাখ রুপি দেয়া হবে ১৬৬৮ জন ভারতীয় সেনাকে।

এছাড়াও তাদের প্রতি সম্মান জানাতে বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কাছে একটি স্মৃতিফলক নির্মাণেরও পরিকল্পনা করছে সরকার। খুব অল্প সময়ের মধ্যে এই স্মৃতিফলক নির্মাণ হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক।

মুক্তিযুদ্ধের প্রায় চার দশক পর ভারতীয় সেনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে বাংলাদেশ এই উদ্যোগ নিল।

এ প্রসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক বলছেন, “বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আরও আগেই এ পদক্ষেপ নেয়া উচিত ছিল, কিন্তু নানাবিধ কারণে এত দেরিতে এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।”

মি: হক বলেন, “শহীদ ১৬৬৮ ভারতীয় সেনার মুক্তিযুদ্ধে অবদানকে স্বীকৃতি দেয়ার পাশাপাশি নগদ পাঁচ লাখ টাকাও দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ সম্মাননা ভারতীয় সেনাদের প্রতি বাংলাদেশের কৃতজ্ঞতা।”

মুক্তিযুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যৌথ বাহিনীর লড়াইয়ে ভারতীয় সেনারাও প্রাণ হারায়।

“১৯৭১ সালের ৪ঠা ডিসেম্বর থেকে ১৬ই ডিসেম্বর পর্যন্ত যুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যৌথ বাহিনীর লড়াইয়ে বাংলাদেশের যোদ্ধাদের পাশাপাশি ভারতীয় সৈন্যরাও নিহত হয়েছে। আমাদের স্বাধীনতায় তাদের অনেক অবদান রয়েছে। তাদের প্রতি আমরা যে কৃতজ্ঞ এটারই প্রতীক এই মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা”- বলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক।

মি: হক জানান ভারতীয় সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নিহত ভারতীয়দের নাম, ঠিকানা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে পাওয়া গেছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ১৬৬৮ জন ভারতীয় সেনার নাম।

প্রতিটি শহীদ পরিবারের হাতে জাতীয় স্মৃতিসৌধের ক্রেস্ট ও মুক্তিযোদ্ধার সম্মাননা দেয়া হবে এবং প্রত্যেক পরিবারকে নগদ পাঁচ লাখ টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।

আগামী মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে ভারত সফর করবেন, সেখানে তিনি নিহত ভারতীয় সাতজনের পরিবারের হাতে মুক্তিযুদ্ধের সম্মাননা তুলে দিবেন।

পরবর্তীতে ভারতে সাতটি জায়গায় গিয়ে বাকিদের সম্মাননা দেয়া হবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্বে। মি: হক জানান যে শহীদদের পরিবারদের কোন জায়গায় সম্মাননা দেয়া হবে সেটা ভারতের কর্তৃপক্ষ ঠিক করবে। সূত্র: বিবিসি বাংলা