মেইন ম্যেনু

ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে আসিফের অভিযোগ মনগড়া : মুশফিক

বরিশাল বুলস বিপিএলে ম্যাচ ফিক্সিং করছে- সঙ্গীত শিল্পী ও খোদ বরিশাল বুলসের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর আসিফ আকবর এমন অভিযোগকে মনগড়া দাবি করে তা উড়িয়ে দিয়েছেন দলটির অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

গতকাল সোমবার আসিফ আকবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিপিএলে তার দল ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত-এ নিয়ে একটি পোস্ট দেন।

সেখানে আসিফ লিখেন, ‘১৭, ১৮, ১৯ এবং ২০ নম্বর ওভারগুলোতে ব্যাটসম্যানরা হয়ে যায় প্রতিবন্ধী আর বোলাররা হয়ে যায় বাঘ। T-20 ক্রিকেট জুয়ার অপর নাম। দর্শক হিসেবে মাঠে যাই খেলা দেখতে আর আমাদের নিয়ে খেলা হয় টেবিলে। সন্দেহ ঢুকেছে প্রেসবক্সেও।’

‘অন্য কোন দলের কথা বলবো না । আমার দল বরিশাল বুলসের বিদেশী এবং দেশী খেলোয়াড়দের একটা অংশ ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত আমি নিশ্চিত, প্রমাণ নেই । তবে বিসিবি এবং আকসু যদি তীক্ষ্ণ দৃষ্টি দেয় তাহলে অবশ্যই তারা প্রমাণ খুঁজে পাবেন আমার বিশ্বাস।’

নিজের দলের বিরুদ্ধে আসিফের এমন সন্দেহে বরিশাল বুলসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বিব্রতবোধ করছেন।

মঙ্গলবার টানা ষষ্ঠ ম্যাচ হারের পর সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘কী আর বলব… ওই অভিযোগ শোনার পর এবং নিজের চোখে দেখার পর নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। উনি আমাদের দেশে প্রায় সেলিব্রেটি এবং শিক্ষিত একজন মানুষ, তার মুখ থেকে এরকম কথা আসবে বা লিখবে…এটা বিরক্তিকর ও লজ্জাজনক।’

বরিশাল অধিনায়ক আরো বলেন, ‘এই দলে আমরা দেশী-বিদেশি সবাই কষ্ট করে খেলছি, পেশাদারিত্ব দিয়ে খেলছি, কারণ এটাই আমাদের রুটি-রোজগার। এটার সঙ্গে যদি কেউ বেঈমানি করে, এর চেয়ে খারাপ কিছু আর হতে পারে না। উনি যেটা লিখেছেন, খুব কষ্ট লাগছে।’

আসিফকে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন মুশফিক, ‘উনি এটা মাথা ঠিক অবস্থায় লিখেছেন নাকি বেঠিক অবস্থায়, নিজেও জানি না! আমার প্রশ্ন করতে ইচ্ছে করছে উনাকে…সামনে পেলে প্রশ্ন করব, কোন পরিস্থিতি দেখে আপনার মনে হয়েছে বা কোন দেশী বা বিদেশি খেলোয়াড় ফি্ক্সিংয়ে জড়িত। উনি লিখেছেন যে উনি নিশ্চিত, কিন্তু প্রমাণ নেই। এটা কোন ধরণের ভাষা! এটাই বলে দেয় উনি কোন অবস্থায় ছিলেন। আমাদের পারফরম্যান্সের কারণে সবাই হতাশ। বরিশালবাসীও হতাশ। ভালো করতে পারছি না, এটা অন্য কথা। কিন্তু উনি যেভাবে লিখেছেন, একজন মানুষের পক্ষে এটা লেখা সম্ভব না, পাগল ছাড়া!’

বিশ্ব ক্রিকেটের জন্য আসিফের এমন কর্মকাণ্ডকে হুমকি মন্তব্য করে মুশফিক আরও বলেন, ‘একদিন পর পর খেলা, টিম হোটেলে গিয়ে দল নিয়ে মিটিং করতে হয়, দল নির্বাচন করতে হয়, রিকভারি করতে হয়, অনুশীলন করতে হয়, কোন অবস্থায় কোন বোলার বা ব্যাটসম্যানকে আনবো এসব নিয়ে ভাবতে ভাবতেই সময় পাই না। এরমধ্যে মানুষ কিভাবে সময় পায় এটা আমার মাথায় কাজ করে না। যারা এ ধরনের কাজ করেন বা এ জাতীয় কথা লেখেন তারা বিশ্ব ক্রিকেটের জন্য হুমকি স্বরূপ। শুধু বিপিএলেই নয়, বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যান্য আসরেও এ জাতীয় মানুষ থাকতে পারে।’