মেইন ম্যেনু

যতটুকু ঘুমায় তার কতটুকু সময় স্বপ্ন দেখি আমরা?

ডানা মেলে উড়ে যাওয়া বা সিঁড়ি থেকে পড়ে যাওয়া। এমনই হাজারো স্বপ্ন ভিড় করে ঘুমের গভীরে। কিছু পাওয়ার তীব্র বাসনা কিংবা ব্যর্থতার ভয় কাজ করে অবচেতন মনে। ভয়ের সঙ্গে মিশে থাকে উত্তেজনা। ফলে, দুঃস্বপ্ন তাড়া করে বেড়ায়। স্বপ্ন বিশেষজ্ঞদের এমনটাই মত।

কেন স্বপ্ন দেখি? কেনই বা দুঃস্বপ্ন তাড়া করে বেড়ায় আমাদের? স্বপ্ন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্বপ্ন আসলে মনের অবস্থা। মনের তিন অবস্থা। পূর্ব সচেতন, অচেতন এবং সচেতন। যখন মানুষ সম্পূর্ণ জেগে থাকে, তখন সচেতন। যখন সম্পূর্ণ ঘুমিয়ে থাকে তখন অচেতন এবং এই দুই অবস্থার মাঝের অবস্থা পূর্ব সচেতন। ঠিক এখান থেকেই স্বপ্নের উত্পত্তি।

(উদ্বেগ থেকে। জীবনের কিছু ক্রাইসিস থেকে উদ্বেগের জন্ম হয়। নিজেদের ফ্যান্টাসি স্টিমুলেট করে। কোথাও একটা গিল্ট জড়িয়ে থাকে। ভয়ের সঙ্গে মিশে থাকে উত্তেজনা।)
কতটা স্বপ্ন দেখি আমরা?

দুবছর বয়স পর্যন্ত শিশুরা ঘুমের প্রায় ৪০ শতাংশ এবং কৈশোরে ঘুম সময়ের ২০ থেকে ২২ শতাংশ স্বপ্ন দেখে। চল্লিশের পর ঘুম সময়ের ১২ থেকে ১৫ শতাংশ স্বপ্ন দেখা হয়। বয়স যত বাড়তে থাকে, স্বপ্ন দেখা তত কমতে থাকে। এই যেমন পাপিয়া ব্যানার্জি। ডানা মেলে উড়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি। মানুষ যেটা চায়, তার পরিপূর্ণতা পেতে চায়। তাই এমন স্বপ্ন। বলছেন স্বপ্ন বিশেষজ্ঞরা।

অনুরাধা সেনগুপ্তের স্বপ্নটা একটু আলাদা। সিঁড়ি থেকে পড়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি। কোনও কাজ করার আগে মনের মধ্যে কাজ করে ব্যর্থতার ভয়। তা থেকেই এ ধরনের স্বপ্ন দেখি আমরা। তবে ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালামের কাছে স্বপ্নের ব্যাখ্যাটা অনেকটা আলাদা। তিনি বলেছেন, স্বপ্ন সেটা নয় যেটা মানুষ ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেখে। স্বপ্ন সেটাই যেটা পূরণের প্রত্যাশা মানুষকে ঘুমোতে দেয় না।