মেইন ম্যেনু

যশোরে মন্দিরে তিন মদ্যপের হামলা, প্রতিমা ভাংচুর

w2

যশোরের একটি মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুর করেছে তিন মদ্যপ। বুধবার রাতে জেলা শহরের ধর্মতলা কদমতলা এলাকার একটি মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুর করা হয়।

এ সময় সেখানে উপস্থিত জনতা দুই মদ্যপকে আটকে গণপিটুনি দেয়। গণপিটুনিতে আহতদের পুলিশ প্রহরায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শহরের ধর্মতলা কদমতলা সার্বজনীন কালীমন্দিরে গীতা পাঠ করছিলেন পুরোহিত সাধন কুমার পাল। এ সময় সেখানে মাতাল অবস্থায় হাজির হন ওই এলাকার শামিম, জসিম ও শাওন নামের তিন যুবক। তাঁরা পুরোহিত সাধন কুমার পালকে গালি দিয়ে তাঁর সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি শুরু করলে একপর্যায়ে মন্দিরে থাকা প্রতিমা মাটিতে পড়ে ভেঙে যায়। এ ছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত হয় মন্দিরের বেড়া।

এ সময় স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে শামিম ও জসিমকে ধরে গণপিটুনি দেয়। অপর যুবক শাওন এ সময় দৌড়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইলিয়াস হোসেনের নেতৃত্বে বিপুলসংখ্যক পুলিশ সেখানে হাজির হয়। তারা জনতার হাত থেকে মদ্যপ দুই তরুণকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ব্যাপারে যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি মো. ইলিয়াস হোসেন বলেন, ‘স্থানীয় উচ্ছৃঙ্খল যুবক জসিম ও শামিম কুলাডাঙ্গা দাসপাড়ার ভেতরে ঢুকে স্থানীয়দের মন্দিরে গিয়ে ধস্তাধস্তি শুরু করে। একপর্যায়ে মন্দিরের মূর্তি ফেলে দেয়। পড়ে গেলে মূর্তিটা ভেঙে যায়। এরপর স্থানীয় লোকেরা তাঁদের আটক করে গণপিটুনি দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই দুজনকে আটক করে পুলিশ তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করে।’ ঘটনার পর দ্রুত বিচার আইনে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানান ওসি।