মেইন ম্যেনু

যে সমাজে জ্ঞানী গুণীদের কদর করা হয় সেখানে জ্ঞানী গুণীদের জন্ম হয়

সুবহানীঘাট কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল আল্লামা কমরউদ্দিন চৌধুরী ছাহেবজাদায়ে ফুলতলী বলেছেন, যারা দ্বিনী প্রতিষ্ঠান কায়েম করে যান তারা কবরে থেকেও এর ছওয়াব পেতে থাকেন। দ্বীনি প্রতিষ্ঠান থেকে জ্ঞান আহরন করে মানুষ প্রকৃত জ্ঞানী হন। যে সমাজে জ্ঞানী গুণীদের কদর করা হয় সেখানে জ্ঞানী গুণীদের জন্ম হয়।

বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর কেন্দ্রীয় মহাসচিব, কামাল বাজার আলিম মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মুফতি একেএম মনোওর আলীর সভাপতিত্বে ২৩ অক্টোবর রবিবার বিশ্বনাথের বড়তলা মজহারিয়া দাখিল মাদরাসা মাঠে মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা সুপার মরহুম আলহাজ্ব হাফিয আং ছাত্তার এর ইসালে সওয়াব মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথাগুলি বলেন।

মাদরাসার সাবেক ছাত্রদের উদ্যোগে আয়োজিত মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা মুফতি একেএম মনোওর আলী বলেন, নিজ এলাকায় শিক্ষার বিস্তার ও প্রসারে হাফিয আং ছাত্তার গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা পালন করে গেছেন। তাঁর অবদান স্বর্নাক্ষরে লেখা থাকবে। এর প্রতিদান অবশ্যই তিনি পাবেন।

মাহফিলে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিশ্বনাথ আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা নুমান আহমদ, মাদরাসার সুপার আলহাজ্ব মাওলানা নজমুল ইসলাম, বিশ্বনাথ আলিয়া মাদরাসার আরবী প্রভাষক মাওলানা নাজিম উদ্দিন। অনুভুতি ব্যক্ত করেন এলাকার প্রবীণ মুরব্বী মোঃ লুকমান হোসেন, মরহুমের পুত্র মাওলানা মোঃ নূরুল আলম। মাহফিলে অলংকারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল, বাংলা টিভি ইউ,কের বিশ্বনাথ সিলেট প্রতিনিধি কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল, আলহাজ্ব তাহির আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মোঃ আজম আলী, সাইদুর রহমান মেম্বার, ছাদ মিয়া, আব্দুস সালাম, মাস্টার তৌফিক চৌধুরীসহ লেখক কবি সাহিত্যিক সাংবাদিক শিক্ষাবিদ জনপ্রতিনিধি মাদরাসার সাবেক ছাত্র ছাত্রীসহ এলাকার বিপুল সংখ্যক মুরব্বীয়ান অংশগ্রহণ করেন। মিলাদ পরিচালনা করেন আল মদিনা হাফিযিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা নজরুল ইসলাম এবং দোয়া পরিচালনা করেন আল্লামা কমরউদ্দিন চৌধুরী ছাহেবজাদায়ে ফুলতলী।