মেইন ম্যেনু

যে ৫টি জিনিস অন্যদের কাছ থেকে ধার করলে সমূহ বিপদ হতে পারে

আসুন, জেনে নিই এমন ৫টি জিনিসের নাম যেগুলি, ফেং শুই মতে, অন্যের কাছ থেকে ধার করে ব্যবহার না করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

চিনা বাস্তুশাস্ত্র ফেং শুই মতে, প্রতিটি মানুষ এবং বস্তুর মধ্যেই একটি বিশেষ শক্তি থাকে, যাকে ফেং শুইয়ের পরিভাষায় বলা হয় ‘চি’। এই ‘চি’ দুই ধরনের হয়— পজিটিভ বা ইতিবাচক, এবং নেগেটিভ বা নেতিবাচক। ফেং শুই বিশ্বাস করে, কোনও মানুষের অন্তর্নিহিত ‘চি’ যেমন তার কোনও কোনও ব্যবহার্য জিনিসে সঞ্চারিত হয়, তেমনই ব্যবহার্য জিনিসে নিহিত ‘চি’-ও সঞ্চারিত হতে পারে মানুষের মধ্যে। সেই কারণেই ফেং শুই কোনও কোনও বস্তু অন্যের কাছ থেকে ধার করে ব্যবহার করার ব্যাপারে বিশেষ নিষেধাজ্ঞা জারি করছে। আসুন, জেনে নিই এমন ৫টি জিনিসের নাম যেগুলি, ফেং শুই মতে, অন্যের কাছ থেকে ধার করে ব্যবহার না করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

১. বিছানা: অন্যের ব্যবহৃত বিছানা ব্যবহার করলে তার শরীরের নেতিবাচক তরঙ্গ সঞ্চারিত হতে পারে আপনার মধ্যেও। যার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে আপনার আর্থিক জীবন।

২. জামাকাপড়: অন্যের পরিহিত জামাকাপড়ের মধ্যে তার শরীরের যে নেতিবাচক ‘চি’ রয়ে যায় তা আপনার পক্ষে অহিতকর প্রমাণিত হতে পারে। কাজেই অন্যের জামাকাপড় কখনওই ধার করে পরা উচিৎ নয়।

৩. টাকাপয়সা: ফেং শুই-তে অন্যের টাকপয়সা ধার করার ব্যাপারেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, অন্যের কাছ থেকে ধার করা টাকা দুর্ভাগ্য ডেকে আনে। অবশ্য শুধু ফেং শুই বিশেষজ্ঞ কেন, আর্থিক বিশেষজ্ঞরাও এই পরামর্শই দেবেন।

৪. কলম: অন্যের কাছ থেকে পেন যদি একান্তই ধার নিতেও হয়, যত দ্রুত সম্ভব তা ফিরিয়ে দিন। নতুবা আপনাকে আর্থিক অনিশ্চয়তার মুখে পড়তে হতে পারে।

৫. ঘড়ি: অন্যের ঘড়ি কখনও ধার করে ব্যবহার করবেন না। ফেং শুই-এ বলা হচ্ছে, অন্যের ঘড়ি ধার নেওয়ার অর্থ— তার খারাপ সময়কেও নিজের সঙ্গী করে নেওয়া।-এবেলা