মেইন ম্যেনু

যে ৭টি খাবার নারীদের খাদ্য তালিকায় রাখা উচিত

নিজেদের স্বাস্থ্য নিয়ে সব নারীরা উদাসীন থাকেন। অথচ ঘরের সবচেয়ে ব্যস্ত সদস্যটি হল নারী। তাই একজন নারীকে থাকতে হয় অনেক বেশি সুস্থ। সাধারণত নারীরা নিজের চাইতে পরিবারের অন্য সদ্যসদের খাবারের প্রতি নজর দিতে গিয়ে নিজের খাবারের প্রতি খুব বেশি লক্ষ্য রাখতে পারেন না। এভাবেই নারীদের স্বাস্থ্যকর খাবারের ঘাটতি দেখা দেয়। যার প্রভাব স্বাস্থ্যের উপর পড়ে থাকে।

নারীদের খাদ্যতালিকায় ভিটামিন বি, ক্যালসিয়াম, ফলিক অ্যাসিড, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন বি, ভিটামিন সি, আয়রন, প্রোটিন, এনজাইম, ফাইবার, এসেনশিয়াল ফ্যাটি অ্যাসিড ইত্যাদি পুষ্টি উপাদান থাকা উচিত। নারীদের প্রয়োজনীয় কিছু খাবার নিয়ে আজকের এই ফিচার।

১। আপেল

সহজলভ্য মজাদার ফল আপেল। আপেলে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট,কোয়ারসেটিন রয়েছে যা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। Appalachian State University এক গবেষণায় দেখেছেন যারা প্রতিদিন কোয়ারসেটিন গ্রহণ করেন তাদের রেসপিরেটরি ইনফেকশন ৪৫% পর্যন্ত কমে যায়।

২। দুধ

ক্যালসিয়ামের অন্যতম উৎস হল দুধ। অধিকাংশ নারীদেরকে ক্যালসিয়ামের অভাবে ভুগতে দেখা যায়। এই অভাব পূরণের জন্য প্রতিদিন ১ গ্লাস দুধ যে কোনো বয়সী নারীর জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এতে করে হাড়ের যে কোনো সমস্যা থেকে মুক্ত থাকতে পারেন নারীরা।

৩। ওটস

ওটস খেতে খুব বেশি সুস্বাদু না হলেও এর রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ যা নারীর স্বাস্থ্যকে উন্নত করে। ওটস নারীদের জন্য অনেক বেশি প্রয়োজনীয় একটি খাবার। প্রতিদিন ওটস খেলে হৃদপিণ্ড কর্মক্ষম থাকে, হজম শক্তি উন্নত হয়, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। ওটসের ফলিক অ্যাসিড গর্ভবতী নারীদের জন্য অত্যন্ত জরুরী। এতে করে শিশু জন্মে কোনো সমস্যার সৃষ্টি হয় না।

৪। স্ট্রবেরি

ভিটামিন সি এবং পটাসিয়াম সমৃদ্ধ স্ট্রবেরি হার্ট সুস্থ রাখে। এর অ্যান্টি অক্সিডেণ্ট উপাদান রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, ত্বকে বলিরেখা পড়া রোধ করে, দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি, ইউরিন ইনফেকশন প্রতিরোধ করে। প্রতিদিন এক থেকে দুই কাপ স্ট্রবেরি পান করুন।

৫। কাঠবাদাম

অনেকে বাদামে ফ্যাট থাকার কারণে খেতে চান না। কাঠবাদামে উপকারী ফ্যাট রয়েছে যা মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে, কোলেস্টেরল হ্রাস করে, ওজন কমাতে সাহায্য করে। এমনকি কাঠ বাদাম ওজন কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন এক আউন্স কাঠ বাদাম খাদ্য তালিকায় রাখুন। এটি নানা ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

৬। শাকসবজি

শাকসবজি সকলেরই বেশি পরিমাণে খাওয়া উচিৎ। বিশেষ করে নারীদের। শাকসবজির ভিটামিন, খনিজ এবং ম্যাগনেসিয়াম দেহের উন্নতি সাধনে সহায়তা করে। ক্যান্সার, মুটিয়ে যাওয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সবুজ শাকসবজির তুলনা নেই।

৭। টমেটো

পরিচিত খাবারের মধ্যে টমেটো অন্যতম। টমেটোতে থাকা ‘লাইকোপিন’ নামক উপাদান স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে থাকে। এছাড়া টমেটো হার্ট সুস্থ রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।