মেইন ম্যেনু

রামপালবিরোধী স্থিরচিত্র প্রদর্শনী পণ্ড করল ছাত্রলীগ

sylhet-news-1

সিলেটের মদনমোহন কলেজে রামপাল কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প বিরোধী স্থিরচিত্র প্রদর্শনী পণ্ড করে দিয়েছে ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার দুপুরে কলেজ ক্যাম্পাসে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট আয়োজিত প্রদর্শনীতে এ ঘটনা ঘটে। তবে ছাত্রলীগের দাবি, ছাত্রফ্রন্টের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য ছাত্রলীগকে দায়ী করছে ছাত্রফ্রন্ট।

আয়োজকরা জানান, মদনমোহন কলেজ ক্যাম্পাসের উন্মুক্ত স্থানে সকালে রামপাল ও সুন্দরবন ইস্যুতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের স্থিরচিত্র প্রদর্শনী শুরু হয়। দুপুরের পর আচমকা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা প্রদর্শনীতে হামলা চালিয়ে সেখানে থাকা বেঞ্চ ও আয়োজন সংশ্লিষ্ট জিনিসপত্র ভাঙচুর করে। এ সময় হামলা ঠেকাতে গিয়ে ছাত্রফ্রন্টের ৫ কর্মী আহত হন।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট মদন মোহন কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবেল মিয়া বলেন, আমরা কলেজ কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে প্রদর্শনীর আয়োজন করি। কিন্তু প্রদর্শনী শুরুর পর ছাত্রলীগ কর্মীরা নানাভাবে উত্যক্ত করতে থাকে। এমনকি সাধারণ শিক্ষার্থীদের তারা প্রদর্শনী দেখতে বাধা দিচ্ছিল। একপর্যায়ে দুপুরে হঠাৎ ছাত্রলীগ আমাদের উপর হামলা চালায়। এতে আমাদের ৫ জন কর্মী আহত হয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, ঘটনাটি ইতোমধ্যে কলেজের অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষকে জানানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৩ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে মদন মোহন কলেজের ছাত্রলীগ নেতা রাজেশ সরকার দাবি করেছেন, ছাত্রলীগ এ হামলা চালায়নি। এটি ছাত্রফ্রন্টের আভ্যন্তরীণ কোন্দল। তারা রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের লক্ষে ছাত্রলীগের উপর দোষ চাপাচ্ছে।

মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ বলেন, ছাত্রফ্রন্টের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ আমি পেয়েছি। এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে আহতদের দেখতে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে হাসপাতালে যান কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি সোহেল আহমদ জানান, মদন মোহন কলেজে ছাত্রলীগ ও ছাত্রফ্রন্টের নেতাকর্মীর মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।