মেইন ম্যেনু

রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন পর্নস্টার মিয়া খলিফা!

vivienne-westwood-insects-wallpaper22

প্রথা কিছু নতুন নয়। এর আগেও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমেরিকা যখন রাষ্ট্রদূত পাঠিয়েছে, দেশের হয়ে সেখানে গিয়েছেন বিখ্যাত অভিনেত্রীরা। সেই তালিকাতেই কি এবার নাম উঠতে চলল বিখ্যাত নীল ছবির তারকা মিয়া খলিফার? আমেরিকার রাষ্ট্রদূত হয়ে তিনি সত্যি সত্যি সৌদি আরবে যাচ্ছেন কি?

দোষটা কোথায়! এক ব্যবসায়ী এবং রিয়েলিটি শো তারকা যদি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হতে পারেন, তবে আর পর্নস্টারের রাষ্ট্রদূত হতে বাধা কোথায়? এরকমই চিন্তাভাবনা থেকে সম্প্রতি মিয়া খলিফাকে রাষ্ট্রদূত করে সৌদি আরবে পাঠানো হোক-এমন দাবি তুলেছেন এক ব্যক্তি। তার নাম ড্যালকম রডরিগজ গোল্ডস্টেন। এবং শুধু দাবি তুলেই তিনি থেমে থাকেননি, নেমে পড়েছেন রীতিমতো সই সংগ্রহেও! এভাবেই অজস্র মানুষের সই সংগ্রহ করে পিটিশন জমা দিতে চান তিনি।

সাড়া পেয়েছেনও বটে। পিটিশনের জন্য তার আর মাত্র ৩৮৪ জনের সই লাগবে। সাক্ষরকারীদের মিয়া খলিফাকে রাষ্ট্রদূত হিসেবে পছন্দ করার যুক্তি নানাবিধ। নাথান বেনসন নামের এক ব্যক্তি যেমন বলছে, “আমার মনে হয় মিয়া খলিফা খুব ঠিকঠাক ভাবেই রাষ্ট্রদূত হিসেবে এই দেশের নৈতিক চরিত্রটির প্রতিনিধিত্ব করতে পারবেন। তাছাড়া জন্মসূত্রে তার সঙ্গে যোগ রয়েছে ইসলামি সংস্কৃতির! ফলে, সৌদি আরবে তার মেলামেশার সুবিধেই হবে”।

বেনসন বেশ গম্ভীরভাবে তার বক্তব্য প্রদান করলেও সবাই এতটাও উদার নন। অনেকেই রীতিমতো ব্যঙ্গবিদ্রুপ করছেন মিয়া খলিফাকে নিয়ে। তাদের বক্তব্য, মিয়া খলিফা জনসংযোগের কাজ ভালই জানেন, যা এতদিন পর্ন ছবিতে নানা ভাবে দেখা গেছে! অতএব, এক্ষেত্রে তার কোন অসুবিধা হওয়ার কথা নয়!