মেইন ম্যেনু

রিঠার ভিন্ন ধর্মী ৭ ব্যবহার

61151029

চুল পরিষ্কার করার কাজে রিঠা সেই আদিকাল থেকে ব্যবহার করা হয়ে আসছে। রিঠা, শিকাকাই ইত্যাদি দিয়ে প্রাকৃতিক শ্যাম্পু তৈরি করা হয়। শুধু চুল পরিষ্কার করার কাজে নয়, দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজেও রিঠা ব্যবহার করা যায়। রিঠার ভিন্ন কিছু ব্যবহার নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন।

১। গয়না পরিষ্কার করতে

গয়না কিছুদিন বাইরে রাখলে এর উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যায়। গয়নার উজ্জ্বলতা ফিরে আনবে রিঠা। গয়নাগুলো রিঠার পানির মধ্যে ভিজিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর একটা পুরনো ব্রাশ দিয়ে ঘষে ঘষে ময়লাগুলো পরিষ্কার করুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। দেখেবন গয়না একদম নতুনের মত হয়ে গেছে।

২। ডিশ ওয়াসার

ডিশ ওয়াসার বোতলে রিঠার পানি ভরে রাখুন। এবার থালা বাসন ধোয়ার সময় এক টেবিল চামচ রিঠার পানি ব্যবহার করুন। এটি থালা বাসন পরিষ্কার করবে।

৩। কাঁচ পরিষ্কার করতে

কাঁচকে নতুনের মত চকচকে করতে রিঠার পানির জুড়ি নিই। একটি বোতলে ২৫০ মিলিলিটার পানির সাথে ১৫ মিলিলিটার রিঠার মিশ্রণ ও সমপরিমাণে ভিনেগার দিয়ে মিশিয়ে নিন। এবার এটি কাঁচ পরিষ্কারক হিসেবে ব্যবহার করুন। কাঁচের ওপর স্প্রে করে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন

৪। গাড়ি পরিষ্কার করতে

রিঠার পানি গাড়ি পরিষ্কার করতে বেশ কার্যকর। রিঠার পানি গাড়ি পরিষ্কার করার সাথে সাথে আপনার গাড়িকে সুঘ্রাণ করবে এবং কাঁচগুলো ঝকঝক করে তুলবে।

৫। প্রাকৃতিক হ্যান্ডওয়াশ

হাত জীবাণুমুক্ত করতে হ্যান্ডওয়াশ অথবা সবান ব্যবহার করে থাকেন। এইবার রিঠার পানি হ্যান্ডওয়াশের কাজ করবে। হাত ধোয়ার সময় সাবান বাদ দিয়ে রিঠার পানি ব্যবহার করুন। হাত পরিষ্কার হয়ে যাবে। এতে লেবুর রস মেশাতে পারেন তাতে একটি সুগন্ধি পাওয়া যাবে।

৬। কার্পেট পরিষ্কার করতে

কার্পেটের দাগের ওপর সামান্য রিঠার মিশ্রণ স্প্রে করে ব্রাশ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে ফেলুন। কিছুক্ষণ পর দেখবেন দাগ একদম গায়েব হয়ে গেছে।

৭। ফ্লোর পরিষ্কার করতে

ফ্লোর নতুনের মত ঝকঝকে করে তুলবে রিঠার মিশ্রণ। পানির সাথে এক টেবিল চামচ রিঠার মিশ্রণ মিশিয়ে নিন। এই পানি দিয়ে ফ্লোর পরিষ্কার করুন।