মেইন ম্যেনু

রুটকে ফিরিয়ে লিড নেওয়ার পথে বাংলাদেশ

bd-21477717037

ঢাকা টেস্টে প্রথম দিনে শেষ বিকেলের মতো দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনেও দাপট দেখালেন বাংলাদেশের বোলাররা। তাতে লাঞ্চের আগেই ৮ উইকেট হারিয়ে ভীষণ বিপদে ইংল্যান্ড। এখন লিড নেওয়ার স্বপ্ন দেখছে স্বাগতিকরা।

৮ উইকেটের ৫টিই নিয়েছেন মিরাজ। ক্যারিয়ারের প্রথম দুই ম্যাচে দ্বিতীয়বার ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিলেন তরুণ এই অফস্পিনার। ক্যারিয়ারের প্রথম দুই ম্যাচে ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া প্রথম বাংলাদেশি বোলার তিনিই।

ঢাকা টেস্টে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ২২০ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করছে ইংল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: লাঞ্চ বিরতিতে ৫২ ওভার শেষে ইংল্যান্ড ১৬৩/৮।

ব্যাট করছেন ক্রিস ওকস (১২) ও আদিল রশিদ (৭) । ফিরে গেছেন জো রুট (৫৬), জাফর আনসারি (১৩), জনি বেয়ারস্টো (২৪), বেন স্টোকস (০), মঈন আলী (১০), গ্যারি ব্যালান্স (৯), অ্যালিস্টার কুক (১৪), বেন ডাকেট (৭)।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে প্রথম দিনের ৩ উইকেটে ৫০ রান নিয়ে আজ দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। বৃষ্টির কারণে ১১.৩ ওভার আগেই প্রথম দিন শেষ হওয়ায় আজ ৩০ মিনিট আগে সকাল সাড়ে ৯টায় দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু হয়েছে।

চট্টগ্রামে অভিষেক ইনিংসেই ৬ উইকেট নেওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ ঢাকাতেও মুশফিকুর রহিমের ভরসা হয়ে উঠেছেন। প্রথম দিনে অ্যালিস্টার কুক ও গ্যারি ব্যালান্সকে ফিরিয়েছিলেন তিনিই। দ্বিতীয় দিনের শুরুতেও জ্বলে ওঠেন তরুণ এই অফ স্পিনার।

দ্বিতীয় দিনে মিরাজ নিজের দ্বিতীয় ওভারেই বোল্ড করে ফিরিয়ে দেন মঈন আলীকে (১০)। পরের ওভারে ইংলিশ শিবিরে আবার আঘাত হানে স্বাগতিকরা। এবার তাইজুল ইসলামের বলে বেন স্টোকসের (০) দারুণ এক ক্যাচ নেন মুমিনুল হক। তখন ৬৯ রানেই ৫ উইকেট নেই সফরকারীদের।

এরপর ষষ্ঠ উইকেটে উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টোকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন জো রুট। দলের স্কোর শতরান পার করেন এই দুজন। তবে দ্বিতীয় স্পেলে আক্রমণে এসেই ৪৫ রানের এ জুটি ভাঙেন মিরাজ। তার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান বেয়ারস্টো (২৪)। ইংল্যান্ডের স্কোর তখন ৬ উইকেটে ১১৪।

বেয়ারস্টো ফেরার পর জাফর আনসারির সঙ্গে সপ্তম উইকেটে ২৬ রান যোগ করেন রুট। তবে আনসারিকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মিরাজ। তার বলে দ্বিতীয় স্লিপে দারুণ এক ক্যাচে আনসারিকে (১৩) ফেরান শুভাগত হোম। আনসারিকে ফিরিয়ে ইনিংসে পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন মিরাজ। ক্যারিয়ারের প্রথম দুই ম্যাচে ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া প্রথম বাংলাদেশি বোলার তিনিই।

চাপের মুখে ফিফটি করে একপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন রুট। তবে ৫৬ রান করা রুটকে ফিরিয়ে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের লিড নেওয়ার স্বপ্ন দেখান তাইজুল। তার বলে এলবিডব্লিউ রুট। তখন ইংল্যান্ডের স্কোর ৮ উইকেটে ১৪৪।

এর আগে তামিম ইকবাল ও মুমিনুল হকের দাপুটে ব্যাটিংয়ে শুরুটা দারুণ হয়েছিল বাংলাদেশের। তবে সেই দারুণ শুরু ধরে রাখতে পারেননি পরের ব্যাটসম্যানরা। ১ উইকেটে ১৭১ রান থেকে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস শেষ হয়েছে ২২০ রানে। ৪৯ রানেই পড়েছে শেষ ৯ উইকেট!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৬৩.৫ ওভারে ২২০ (তামিম ১০৪, মুমিনুল ৬৬, মাহমুদউল্লাহ ১৩, সাকিব ১০; মঈন ৫/৫৭, ওকস ৩/৩০, স্টোকস ২/১৩ )।