মেইন ম্যেনু

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিন : বাংলাদেশের প্রতি এইচআরডব্লিউ

myanmar-rohinga20161124181635

নির্যাতনের শিকার মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ও সুরক্ষা দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। বুধবার এ সংস্থার দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক মীনাক্ষী গোস্বামী এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, চলতি বছরের ৯ অক্টোবরের পর থেকে নতুন করে মিয়ানমারে সংঘাত শুরু হওয়ার পর বেশ কয়েকজনকে হত্যা করা হয়েছে। মংডু শহরতলির পাঁচটি গ্রামের ১২ শতাধিক বাড়িঘর ধ্বংস করা হয়েছে। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিচারবহির্ভূত হত্যা, ধর্ষণ এবং নির্বিচার গ্রেপ্তারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বেশির ভাগ আক্রান্ত এলাকায় আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থাগুলোকেও ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, চলমান এই সংঘাতে অন্তত ৩০ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। এসব নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের অনেকেই মিয়ানমার থেকে পালিয়ে হেঁটে বা নদীপথে বাংলাদেশে যাচ্ছে আশ্রয়ের জন্য।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ সরকার তাদের দেশে আর কোনো রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিতে নারাজ। বাংলাদেশে এখন ৩০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা নিবন্ধিত শরণার্থী হিসেবে আশ্রয়শিবিরে রয়েছে। তবে বাংলাদেশ সরকার মনে করে, প্রকৃতপক্ষে তিন থেকে পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা এখন দেশটিতে বসবাস করছে। বাংলাদেশ সরকার দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী, নৌবাহিনী এবং কোস্টগার্ডকে সমুদ্রসীমার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে।

বাংলাদেশ অনেক আগে থেকেই বলে আসছে, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার মতো সক্ষমতা তাদের নেই। এ পরিস্থিতিতে অবশ্যই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিতে হবে। তবে বাংলাদেশের এই দাবির পরও বলা যায়, আন্তর্জাতিক আইনের প্রথা অনুযায়ী চরম মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার এসব মানুষকে বাংলাদেশ ফিরিয়ে দিতে পারে না। এসব মানুষকে প্রবেশ এবং সুরক্ষা দিতে বাংলাদেশের বাধ্যবাধকতা আছে।