মেইন ম্যেনু

লতাপাতা খেয়েই বেঁচেছিলেন ২৫৬ বছর!

256

মানুষ আর কত বছরই বাঁচে? হয়তো ৭০ বা ৮০ বছর। মাঝে মধ্যেই খবরে আসে বিশ্বের প্রবীণতম ব্যক্তির। তাদের কারোর হয়তো বয়স ১২০ বা এর কাছাকাছি। তাই বলে ২৫৬ বছর বাঁচার খবরটি হয়তো একটু বিস্ময়করের মতো শোনাবে। এমন খবরই প্রকাশিত হয়েছে গণমাধ্যমগুলোতে।

তার নাম চীনের বাসিন্দা লি চিং ইউয়েন। তিনি ১৭৪৯ সালে ৭১ বছর বয়সে চীনা সেনাবাহিনীর মার্শাল আর্ট শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। তার জন্ম ১৬৭৭ সালে। ২৫৬ বছর অতিক্রম করার সময় তিনি বিয়ে করেছেন ২৩ বার। ২৩টি সংসারে সন্তানের সংখ্যা ছিল ১৮০ জন। ১৯৩৩ সালে লি-এর মৃত্যুর পর স্ত্রী-সন্তানদের একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে।

কিন্তু, এ বছর বাঁচার রহস্য কী? কোনো জাদুতে এত বছর বেঁচেছিলেন লি? জানা গেল, কচ্ছপের মতো বসে থাকতেন তিনি। ঘুমাতেন কুকুরের মতো কুন্ডলি হয়ে। হৃদস্পন্দন ছিল অত্যন্ত ধীরগতিতে। সময় কাটত শিল্প ও গাছপালা নিয়ে। তার খাবার তালিকায় ছিল গাছের লতাপাতা। ব্যয়াম ও মার্শাল আর্টের প্রতি তার ঝোঁক ছিল অত্যধিক। তিব্বত থেকে শুরু করে চীনের গুরুত্বপূর্ণ সব শহরে ভ্রমণও করেন তিনি।

আবার অনেকেই বলেন, লি-এর জন্ম ১৬৭৭-এ নয়। ১৭৩৬ সালে। সেক্ষেত্রে তার বয়স দাঁড়ায় ১৯৭ বছর। সেটাই বা কম কীসে? তথ্যসূত্র : টাইমস অ্যালার্ট।