মেইন ম্যেনু

লাল নীল সবুজ থেকে চকোলেট, মুরগি কত রঙের ডিম দেয় জানেন?

1477537248

প্রতিদিন ডিম না থাকলে যেন খাদ্য তালিকা সম্পূর্ণ হয় না। যদি দেশি মুরগির ডিম হয় তো কথাই নেই। বাজারে গেলে চোখে পড়ে সাদা, বাদামি ধরনের ডিমের পসরা সাজিয়ে বসে রয়েছেন ব্যবসায়ীরা। কিন্তু কখনও কি চোখে পড়েছে গোলাপি, গাঢ় লাল মুরগির ডিম। এ দেশে না পাওয়া গেলেও বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় এ সব রংয়ের ডিম বিক্রি হয়ে থাকে। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কোন প্রজাতির মুরগি কী রংয়ের ডিম পাড়ে।

অ্যারোকানাস- চিলির এক শঙ্কর প্রজাতির ঘরোয়া মুরগি। এই মুরগির বিশেষত্ব হল এদের কানের ঠিক দুই পাশে অদ্ভুত ধরনের পালক রয়েছে। সাধারণত এই মুরগির ডিম নীল রঙের হয়ে থাকে। তবে বেশ কিছু জায়গায় সাদা বা হাল্কা সবুজ রংয়ের ডিমও পাড়ে।

অ্যামেরোকানাস- অ্যারোকানাস ও অ্যামেরোকানাসের মধ্যে পার্থক্য হল অ্যামেরোকানাসের লেজ বেশ ছোট। এটি বিরল প্রজাতির। আমেরিকায় এই প্রজাতির মুরগির চাষ হয়। এরাও নীল রংয়ের ডিম পাড়ে।

ইস্টার এগারস- ইস্টার এগারস বিশেষ ধরনের আমেরিকান মুরগি। এই প্রজাতির মধ্যে কোনও মিশ্রণ নেই। তবে ইস্টার এগারস বিখ্যাত নানা রংয়ের ডিমের জন্য। বাদামি, সাদা কিংবা হাল্কা নীল রংয়ের ডিম দিয়ে থাকে এরা।

ক্রিম লেগবার- শঙ্করপ্রজাতির ক্রিম লেগবারকে সাধারণত দেখা যায় ব্রিটেনে। প্লাইমাউথ রক, লেগহর্ন, ক্যাম্বার্সের মিলনে তৈরি হয়েছে ক্রিম লেগবার। হাল্কা নীল বা সবুজ রংয়ের ডিম দিয়ে থাকে লেগবার।

মারানস- স্বভাবে শান্ত। ছোটখাটো ফরাসি শঙ্কর প্রজাতির মারানস মুরগি গাঢ় বাদামি রংয়ের ডিম পেড়ে থাকে।

ব্ল্যাক কপার মারানস- এটি মারানসের আরও একটি শঙ্কর প্রজাতি। দারুণ পোষ মানে। গাঢ় চকোলেট রং ডিম দেয় ব্ল্যাক কপার মারানস।

ওয়েলসামার- নেদারল্যান্ডসের শঙ্কর প্রজাতির মুরগি ওয়েলসামার। বিংশ শতাব্দির শুরুর দিকে স্থানীয় মুরগির সঙ্গে লেগহর্ন, কোচিনস, ওয়ানডটেসর সঙ্গে সংমিশ্রনে তৈরি হয়েছে ওয়েলসামার। বড় গাঢ় বাদামি রংয়ের ডিম দেয় ওয়েলসামার।

পেনেদেসেনকা- স্পেনের স্থানীয় মুরগি পেনেদেসেনকা গাঢ় লাল ও বাদামি রংয়ের ডিম দেয়।

অ্যারোকানাস- চিলির এক শঙ্কর প্রজাতির ঘরোয়া মুরগি। এই মুরগির বিশেষত্ব হল এদের কানের ঠিক দুই পাশে অদ্ভুত ধরনের পালক রয়েছে। সাধারণত এই মুরগির ডিম নীল রঙের হয়ে থাকে। তবে বেশ কিছু জায়গায় সাদা বা হাল্কা সবুজ রংয়ের ডিমও পাড়ে।

অ্যামেরোকানাস- অ্যারোকানাস ও অ্যামেরোকানাসের মধ্যে পার্থক্য হল অ্যামেরোকানাসের লেজ বেশ ছোট। এটি বিরল প্রজাতির। আমেরিকায় এই প্রজাতির মুরগির চাষ হয়। এরাও নীল রংয়ের ডিম পাড়ে।

ইস্টার এগারস- ইস্টার এগারস বিশেষ ধরনের আমেরিকান মুরগি। এই প্রজাতির মধ্যে কোনও মিশ্রণ নেই। তবে ইস্টার এগারস বিখ্যাত নানা রংয়ের ডিমের জন্য। বাদামি, সাদা কিংবা হাল্কা নীল রংয়ের ডিম দিয়ে থাকে এরা।

ক্রিম লেগবার- শঙ্করপ্রজাতির ক্রিম লেগবারকে সাধারণত দেখা যায় ব্রিটেনে। প্লাইমাউথ রক, লেগহর্ন, ক্যাম্বার্সের মিলনে তৈরি হয়েছে ক্রিম লেগবার। হাল্কা নীল বা সবুজ রংয়ের ডিম দিয়ে থাকে লেগবার।-আনন্দবাজার