মেইন ম্যেনু

শিক্ষকের সঙ্গে অসদাচরণ : প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার কালোব্যাজ ধারণের সিদ্ধান্ত

begum

এইচ.এম নুর আলম, বেরোবি প্রতিনিধি
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন একজন শিক্ষকের সঙ্গে এক কর্মকর্তার অসৌজন্যমূলক ও ঔদ্ধ্যতপূর্ণ আচরণের নিন্দা জানিয়েছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। একই সাথে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকেও এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিন্দা জানানো হয়েছে। নিন্দা জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু পরিষদ (শিক্ষক) এর সদস্য সচিব মশিউর রহমান।

ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার পঞ্চম দিনের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন দিনব্যাপী শিক্ষকদের কালোব্যাজ ধারণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বুধবার চতুর্থ দিন সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত প্রথম শিফটের পরীক্ষা চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ড. ওয়াজেদ রিসার্চ ইনস্টিটিউট’ এর রিসার্চ অফিসার মোঃ রোকনুজ্জামান কর্তব্যরত অবস্থায় একজন শিক্ষকের সাথে অসদাচরণের অভিযোগ ওঠে। এর পরেই শিক্ষক সমিতির কার্যকরী সংসদ জরুরি সভা করে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায় এবং কালোব্যাজ ধারণের কর্মসূচি গ্রহণ করে।

এছাড়াও অভিযুক্ত কর্মকর্তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে লিখিতভাবে অভিযোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষক সমিতি। শিক্ষক সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জরুরি সভায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আর এম হাফিজুর রহমান।

ন্যাক্কারজনক ওই ঘটনার পর তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্ত কর্মকর্তা রোকনুজ্জামানকে ভর্তি পরীক্ষার কাজ থেকে প্রত্যাহার করাসহ পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশে মৌখিকভাবে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী। তাৎক্ষণিক এই উদ্যোগ গ্রহণ করায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশানকে ধন্যবাদ জানিয়েছে শিক্ষক সমিতি।

এ ঘটনায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার জন্য দায়ী ওই কর্মকর্তার দৃষ্টাস্তমূলক শাস্তিও দাবি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে।

এ দিকে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ( শিক্ষক) এর সদস্য সচিব গণিত বিভাগের শিক্ষক মশিউর রহমান মুঠোফোনে বলেন, শিক্ষকের সাথে এমন অসদাচরণ একটা ন্যাক্কারজনক ঘটনা । এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য যে, রোকনুজ্জামান নামের কর্মকর্তাকে পরীক্ষা শেষ হলে তাঁর বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রক্টর শাহীনুর রহমান।