মেইন ম্যেনু

‘শিশু ধর্ষণের বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে’

anisul-haque20160505062322

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, দিনাজপুরের পার্বতীপুরে পাঁচ বছরের শিশুসহ যেকোনো শিশু ধর্ষণের বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হবে।

অভিযুক্তদের কম সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

বুধবার বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের রিফ্রেশার কোর্সের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে যাবে এবং তার বিচারিক কাজ দ্রুত সময়ে হবে। আমি আশা করব ধর্ষণে অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে। যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের অপরাধ করতে কেউ সাহস না পায়।’

প্রসঙ্গত, দিনাজপুরের পাবর্তীপুর উপজেলায় পাঁচ বছর বয়সি ধর্ষিত শিশুকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এদিকে এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধর্ষণে জড়িত থাকার অভিযোগ শিশুর বাবা ঘটনার দুই দিনের মাথায় দুজনকে আসামি করে মামলা করেন। মামলার আসামিরা হলেন স্থানীয় সাইফুল ইসলাম (৪২) ও আফজাল হোসেন (৪৮)। এর মধ্যে সাইফুল ইসলামকে দিনাজপুর শহর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শিশুটির বাবা সুবল দাস জানান, খেলার জন্য শিশুটি পুতুল নিয়ে বাড়ির পাশে মাঠে যায়। ঠিক সে সময়ে একই গ্রামের ওই দুজন শিশুকে কৌশলে তুলে নিয়ে যায়। পাশের একটি হলুদ ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর মুমূর্ষু অবস্থায় নির্জন পড়ে থাকে শিশুটি। এভাবেই সারা রাত ক্ষেতেই পড়ে থাকে সে।

মেয়ের খোঁজ না পেয়ে গত ১৮ অক্টোবর মঙ্গলবার থানায় জিডি করেন শিশুর বাবা। ১৯ অক্টোবর বুধবার ভোরে স্থানীয়রা অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। পরিবারের দাবি, শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে। ধর্ষণের পর ছয় দিন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শিশুটির চিকিৎসা চলে। কিন্তু অবস্থার অবনতি হতে থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবার তাকে ঢামেকে ভর্তি করা হয়।