মেইন ম্যেনু

শুক্রবার রাত থেকে সাত দিন বিঘ্নিত হবে ইন্টারনেট সেবা

সাবমেরিন কেবলের রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য টানা সাতদিন ইন্টারনেট সেবা বিঘ্নিত হতে পারে। আগামী শুক্রবার দিবাগত রাত ১২ টা থেকে বৃহস্পতিবার বেলা দুইটা পর্যন্ত এই সমস্যা দেখা দেবে।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল)।

সরকারি-বেসরকারি সেবা এখন ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে পেড়ায় এই সময়ে সেবায় যেন বিঘ্ন না ঘটে, সে জন্য বিকল্প উপায়ে ইন্টারনেট চালুর কথাও জানিয়েছে বিটিসিএল।

বাংলাদেশে ইন্টারনেট সেবার প্রধান মাধ্যম এই সাবমেরিন কেবল। একটিমাত্র কেবলের ওপর নির্ভরশীল হওয়ায় ওই কেবল রক্ষণাবেক্ষণের কাজ বা কোথাও কেটে গেলে এর প্রভাব পড়ে বাংলাদেশে।

তবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, তারযুক্ত ব্রডব্যান্ডে লাইনে প্রভাব পড়লেও মোবাইলেও ইন্টারনেটের গতিতে কোনো প্রভাব পড়বে না।

জানতে চাইলে তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়ার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘সাবমেরিন কেবল কাটা পড়ুক বা বন্ধ হোক, তাতে মোবাইল ইন্টারনেটের গতিতে কোনো প্রভাব পড়বে না। কারণ মোবাইল ইন্টারনেট চলে টেলিকম সার্ভিসের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়।’

বিটিসিএল যে বিকল্প ব্যবস্থায় ইন্টারনেট চালুর কথা বলেছে, সেটি কীভাবে হবে- জানতে চাইলে মোস্তফা জাব্বার বলেন, সাবমেরিক কেবল ছাড়াও টেরিস্টরিয়াল পদ্ধতিতে ইন্টারনেট চালু রাখার ব্যবস্থা হয়েছে। বিটিসিএল সেই পদ্ধতিই ব্যবহার করবে।

তবে বাংলাদেশ এখন একটি মাত্র সাবমেরিন কেবলের ওপর নির্ভরশীল হলেও অচিরেই দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের সঙ্গে যুক্ত হবে বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বুধবার জিডিটাল ওয়ার্ল্ড উদ্বোধন করে তিনি জানান, এই কেবলে যুক্ত হলে দেশের প্রয়োজন মিটিয়ে প্রতিবেশী দেশেও ব্যান্ডউইথ রপ্তানি করা যাবে।