মেইন ম্যেনু

শেষ সন্তান নিন ৩৫ বছর বয়সে : গবেষণা

154717woman-at-35

নতুন এক গবেষণায় বলা হয়, যে নারীরা তাদের শেষ সন্তান ৩৫ বছর বয়সের পর নিয়েছেন, মেনোপজের পর তাদের মস্তিষ্কের ক্ষমতা অনেক ভালো অবস্থায় থাকে।

ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার কিক স্কুল অব মেডিসিনের অ্যাসিস্টেন্ট প্রফেসর এবং এ গবেষণার প্রধান গবেষক রোকসানা করিম জানান, আমরা বলতে চাই না ৩৫ বছর বয়স হলেই নারীরা সন্তান নেওয়া বন্ধ করবেন। তবে গবেষণায় শক্ত প্রমাণ মিলেছে যে, এ বয়সে শেষ সন্তান নিলে মেনোপজের পর মায়ের মস্তিষ্ক খুব ভালো অবস্থায় থাকে। আসলে নারীর শেষ গর্ভাবস্থার সঙ্গে পরবর্তী জীবনের মস্তিষ্কের অবস্থার মধ্যে সংযোগ রয়েছে।

মেনোপজের পর নারীর জীবনে নানা পরিবর্তন আসে। এর সঙ্গে শেষ গর্ভাবস্থার সম্পর্ক খুঁজে দেখার ক্ষেত্রে এটিই প্রথম গবেষণা। গর্ভাবস্থায় প্রচুর হরমোনের ক্ষরণ এবং মস্তিষ্কের কগনিটিভ কার্যক্রমের মধ্যে কঠিন সম্পর্ক রয়েছে। প্রোজেস্টেরন হরমোনের কারণে মস্তিষ্কের টিস্যুগুলো প্রভাবিত হয়। অয়েস্ট্রোজেন এবং প্রোজেস্টেরনের কারণে পরবর্তী জীবনে মস্তিষ্ক বেশ ভালো কাজ করতে থাকে।

জার্নাল অব দ্য আমেরিকান গেরিয়াট্রিক্স সোসাইটিতে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, ৮৩০ জন নারীর ওপর গবেষণা চালানো হয় যাদের গড় বয়স ৬০ বছর। অংশগ্রহণকারীদের ওপর বেশ কিছু পরীক্ষা চালানো হয়। তাদের ভার্বাল মেমোরি, সাইকোমটোর স্পিড, মনোযোগ এবং একাগ্রতা, পরিকল্পনা, দৃষ্টিশক্তি এবং স্মৃতি ইত্যাদি বিষয়ে পরীক্ষা চালানো হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, যে নারীরা ৩৫ বছর বয়স বা তার পরে শেষ সন্তান নিয়েছেন, মেনোপজের পর তাদের মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বেশ ভালো পর্যায়ে রয়েছে। এই বয়সে গর্ভবতী হওয়ার কারণে নারীর সেক্স হরমোন উৎপন্ন হয় গর্ভে। এতে মস্তিষ্কের অবস্থা উন্নত হয়ে ওঠে।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস