মেইন ম্যেনু

শেষ সময়ে জনপ্রিয়তা বাড়ছে ট্রাম্পের, হিলারির নতুন চেষ্টা

photo-1478345227

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বাকি আর মাত্র তিনদিন। এই শেষ সময়ে বিভিন্ন নির্বাচনী জরিপ অনুযায়ী, রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। আর এই পরিস্থিতিতে ডেমোক্রেটিকদের জন্য নিরাপদ অঙ্গরাজ্যগুলোতে জোর প্রচারণা চালাচ্ছেন দলটির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন।

বিবিসির প্রতিবেদকদের তথ্য অনুযায়ী, ট্রাম্প ও হিলারি উভয়েই শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ‘দোদুল্যমান ভোটারদের’ দলে টানার চেয়ে দলের সমর্থকদের ভোট দিতে উদ্বুদ্ধ করায় বেশি মনোযোগ দিয়েছেন।

এরই মধ্যে মার্কিন নির্বাচনে আগাম ভোট পড়েছে তিন কোটি ৭০ লাখ। তবে এখন পর্যন্ত পাওয়া ভোটে কোন প্রার্থী এগিয়ে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানায়নি মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনের আগে এই সময়ে জঙ্গি সংগঠন আল-কায়েদার হামলার একটি হুমকির বিষয় খতিয়ে দেখছে কর্তৃপক্ষ। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, টেক্সাস ও ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যে মঙ্গলবারের নির্বাচনের আগেই হামলা হতে পারে বলে খবর পেয়েছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। তবে পুলিশের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ওই তথ্যে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। আর মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, প্রতিটি বড় আয়োজনের আগেই সব হুমকি খতিয়ে দেখা হয়।

তবে এমন পরিস্থিতিতেই ওহাইও, পেনসিলভানিয়াসহ বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে প্রচারণা চালাচ্ছেন মার্কিন দুই প্রধান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীরা। অঙ্গরাজ্যগুলো মঙ্গলবারের নির্বাচনের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।

ওহাইওর ক্লিভল্যান্ডে প্রচারণায় হিলারি ক্লিনটন বলেন, ‘আমাদের অনেক অসম্পন্ন কাজ রয়ে গেছে। এখনো অনেক বাধা ভাঙতে হবে এবং আপনাদের সহযোগিতায় কাচের ছাদ এবার ভাঙবই।’

ক্লিভল্যান্ডে হিলারি ক্লিনটনের প্রচারণা শেষ হয় কনসার্টের মধ্য দিয়ে, যেখানে অংশ নেন মার্কিন র‍্যাপ সংগীতশিল্পী জে জেড ও তাঁর স্ত্রী সংগীতশিল্পী বিয়ন্সে। দুই তারকাই হিলারির প্রতি তাঁদের সমর্থনের কথা জানান।

ডেমোক্রেটিক প্রচার দলের পক্ষ থেকে বিনামূল্যের ওই কনসার্ট আয়োজনের লক্ষ্য হলো কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন ভোটারদের ভোট দিতে উদ্বুদ্ধ করা। এমন উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে কয়েকটি কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছে।

অপর দিকে নিউ হ্যাম্পশায়ার অঙ্গরাজ্যের এক প্রচারণায় হিলারি ক্লিনটনের অভিবাসননীতির কড়া সমালোচনা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে সিরীয় শরণার্থীদের নেওয়ার হার ৫৫০ শতাংশ বাড়াতে চান হিলারি। তাঁর এমন পরিকল্পনায় আমাদের স্কুল এবং কমিউনিটিতে সন্ত্রাসী, চরমপন্থী ও মৌলবাদী একটি প্রজন্ম দেখা যাবে।’

অবশ্য এর আগে পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের পিটসবার্গের এক প্রচারণায় ডোনাল্ড ট্রাম্পকে উদ্দেশ করে হিলারি ক্লিনটন বলেন, ‘মেজাজ এবং নারী ও সংখ্যালঘুদের প্রতি অসম্মানজনক মন্তব্যের জন্য তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রেসিডেন্ট হওয়ার অনুপযুক্ত।’



« (পূর্বের সংবাদ)