মেইন ম্যেনু

শোকে ভাসছে ব্রাজিল

bra20161129201620

শোকে ভাসছেন ব্রাজিলের ফুটবল ভক্তরা। স্থানীয় সময় সোমবার রাতে বিমান বিধ্বস্তে দেশটির শীর্ষস্থানীয় ফুটবল ক্লাব শাপেকোয়েন্সের খেলোয়াড়দের বহনকারী একটি বিমান কলম্বিয়ায় বিধ্বস্তে ১৯ খেলোয়াড়ের প্রাণহানির ঘটনায় ব্রাজিলসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ফুটবল ভক্তদের মাঝে দেখা দিয়েছে শোক।

এদিকে ফুটবল ক্লাব শাপেকোয়েন্সের খেলোয়াড়সহ ৮১ যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তে ৭৬ জনের প্রাণহানির ঘটনায় তিনদিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে ব্রাজিলে। সোমবার স্থানীয় সময় রাত সোয়া ১০টায় খেলোয়াড় ও সাংবাদিকদের বহনকারী বিমানটি কলম্বিয়ার মেদেলিন শহরের পার্বত্য এলাকায় বিধ্বস্ত হয়।

মঙ্গলবার দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল তেমের খেলোয়াড় ও সাংবাদিকদের প্রাণহানির ঘটনায় তিনদিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছেন। বলিভিয়া থেকে ছেড়ে যাওয়া ওই বিমানটি কলম্বিয়ার মেডিলিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাওয়ার পথে বিধ্বস্ত হয়।

বিধ্বস্ত বিমানের ধ্বংসাবশেষের ভেতর থেকে ছয়জনকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও হাসপাতালে নেয়ার পর একজন মারা গেছেন। উদ্ধারকৃতদের মধ্যে জীবিত দুই খেলোয়াড় রয়েছেন। তারা হলেন- আলান রুচেল ও জ্যাকসন। ক্লাবের গোলরক্ষক দানিলোকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও অবস্থা গুরুতর হওয়ায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ ছাড়া রক্ষণভাগের খেলোয়াড় জামপায়ার নেটো দুর্ঘটনায় বেঁচে গেছেন বলে একটি সূত্র দাবি করেছে। বিধ্বস্ত বিমানের দুই ক্রকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

মেডেলিন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে বলছে, বিধ্বস্ত সিপি-২৯৩৩ বিমানটিতে শাপেকোয়েন্স রিয়েল ফুটবল দলের খেলোয়াড়সহ ৭২ যাত্রী ও ৯ ক্রু ছিলেন। স্থানীয় সময় সোমবার রাত সোয়া ১০টার দিকে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে। নিহত ৭৬ জনের মধ্যে ১৯ খেলোয়াড় ও ২১ সাংবাদিক রয়েছে।

ফ্লাইট ট্র্যাকিং সেবাদানকারী সাইট ফ্লাইটরাডার২৪ টুইটারে দেয়া এক টুইটে বলেছে, গন্তব্যস্থল থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে এবং ১৫ হাজার ৫০০ ফুট ওপরে থাকাবস্থায় বিমানটির সর্বশেষ ট্র্যাকিং সিগনাল পাওয়া যায়।

অ্যাটলেটিকো নেসিওনালের বিপক্ষে কোপা সুদামেরিকানা কাপ ফাইনালের প্রথম পর্বে অংশ নিতে যাচ্ছিলেন ব্রাজিলের ফুটবল ক্লাব শাপেকোয়েন্সের খেলোয়াড়রা। দক্ষিণ আমেরিকার ইউরোপা কাপের ফাইনালে অ্যাটলেটিকো নেসিওনালের বিপক্ষে বুধবার খেলায় অংশ নেয়ার কথা ছিল ক্লাবটির। ক্লাবের খেলার সংবাদ কভারেজের জন্য দেশটির বিভিন্ন গণমাধ্যমে ২১ সাংবাদিক বিমানের যাত্রী হয়েছিলেন। দুর্ঘটনায় সব সাংবাদিকের প্রাণহানি ঘটেছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে।

এদিকে, বিমান বিধ্বস্তে ফুটবল ক্লাবের খেলোয়াড়দের প্রাণহানির ঘটনায় ব্রাজিলসহ বিশ্বজুড়ে নেমে এসেছে শোকের কালো ছায়া। একসঙ্গে একটি দলের অধিকাংশ খেলোয়াড়ের প্রাণহানির ঘটনায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা শোক প্রকাশ করেছেন।