মেইন ম্যেনু

সাঁওতালদের ওপর হামলা: অভিযোগের তীর সরকারদলীয় নেতাদের দিকে

221801sautal-kalerkantho_pic

বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলা গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতালরা তাদের ওপর সহিংস হামলার জন্য স্থানীয় সাংসদসহ সরকারি দলের একটি অংশ ও প্রশাসনকে দায়ী করেছেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধিদল রবিবার ঘটনাস্থলে গেলে তারা এ অভিযোগ করেন। পরে ওই প্রতিনিধি দলের একজন সদস্য বিবিসিকে বলেছেন সাঁওতাল ও পুলিশ উভয়ের ওপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেবে সরকার।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে একটি চিনিকলের আওতায় থাকা ভূমি নিয়ে গত সপ্তাহের সহিংসতায় সাঁওতাল সম্প্রদায়ের কয়েকজনের প্রাণহানি এবং বাড়িঘর পুড়িয়ে তাদের উচ্ছেদের ঘটনার পাঁচদিন পর আজ ওই এলাকা পরিদর্শন করে সাঁওতালদের সাথে কথা বলেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একটি দল।

সাঁওতাল সম্প্রদায়ের একজন রাফায়েল হাযদা বিবিসিকে বলেছেন আওয়ামী লীগ নেতাদের তারা জানিয়েছেন যে স্থানীয় সাংসদসহ কয়েকজন নেতাই তাদের ওপর হামলার জন্য দায়ী।

আবার নাগরিক সমাজেরও একটি প্রতিনিধি দল ওই এলাকায় গিয়ে সাঁওতালদের সাথে কথা বলেছেন। তার মধ্যে ছিলেন অর্থনীতিবিদ আবুল বারাকাত। তিনি বলছেন হামলায় সরকারি দলের নেতাদের সম্পৃক্ততার তথ্য তারাও পেয়েছেন।

আর ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর আওয়ামী লীগ প্রতিনিধি দলের সদস্য দলটির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলছেন অভিযোগটি তারাও পেয়েছেন, তবে তার মতে এ ঘটনায় স্থানীয় রাজনীতিও রয়েছে আর অভিযোগের সত্যতা রয়েছে কি-না সেটিও দেখতে হবে।

মিস্টার চৌধুরী বলেন সাঁওতালদের ওপর হামলাকারীদের যেমন বিচার হবে তেমনি তীর ধনুক নিয়ে যারা পুলিশের ওপর আক্রমণ করেছে তাদেরও বিচারের আওতায় আনা হবে।

তিনি বলেন সাঁওতালরা সেখানকার ভূমিতে চাষাবাদ করে আয় করতে পারবে কিন্তু জমির মালিকানা সরকারের হাতে থাকবে।

১৯৫৬ গাইবান্ধার মহিমাগঞ্জ চিনি কলের জন্য প্রায় দুই হাজার একর জমি অধিগ্রহণ করে তৎকালীন সরকার। তখন সেখানে ১৫টি গ্রামে সাঁওতালদের বসবাস ছিল।

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আব্দুস সামাদ বলছেন সাঁওতালদের পুনর্বাসনের জন্য ইতোমধ্যেই নানা প্রস্তাব তারা দিয়েছেন।

তিনি বলেন খাদ্যশস্যসহ নানা সহায়তার পাশাপাশি দশ একর জমি চিহ্নিত করা হয়েছে আশ্রয়হীনদের জন্য।

রাফায়েল হাযদা বলছেন খাস জমি নয়, তাদের কাছ থেকে নেয়া জমিই তাদের ফিরিয়ে দিতে হবে।

“আমাদের বাপ দাদার সম্পত্তির জন্য আমরা জীবন দিয়েছি, রক্ত দিয়েছি, আমরা ওটাই চাই”

যদিও জেলা প্রশাসক বলছেন তারা সাঁওতালদের সাথে আলোচনা করেই এ সমস্যার সমাধান করবেন বলে আশা করছেন।-বিবিসি বাংলা



« (পূর্বের সংবাদ)